Tuesday, May 21, 2024

৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেত জারি

অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় মোখার গতিবোগ বেড়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে ৪ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত নামিয়ে সমুদ্র বন্দর ও উপকূলীয় এলাকায় ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, পায়রা বন্দর এবং উপকূলীয় ১২ জেলায় ৮ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এছাড়া মোংলা বন্দরে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (১২ মে) আবহাওয়া অধিদপ্তর আরও জানিয়েছে, কক্সবাজার ও চট্টগ্রাম এলাকার দীপাঞ্চলে ১০-১২ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের আশঙ্কা রয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দরে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড়টি কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৮৭০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এটি ঘণ্টায় ১৩ কিলোমিটার গতিতে উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

শুক্রবার (১২ মে) ভারতীয় আবহাওয়া বিভাগের ১২ নম্বর বুলেটিনে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের আন্দামানের রাজধানী পোর্ট ব্লেয়ার থেকে ৫৩০ কিলোমিটার, কক্সবাজারের দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিম উপকূল থেকে ৮৭০ কিলোমিটার ও মিয়ানমারের সিত্তে শহর থেকে ৮০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় মোখার কারণে কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের ১৪ তারিখের পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে। শুক্রবার (১২ মে) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে আন্তঃ শিক্ষা বোর্ড সমন্বয় কমিটি।

মোখা মোকাবিলায় চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে এক হাজার ৬০৬টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে মোট ১০ লাখ সাত হাজার ১০০ জন আশ্রয় নিতে পারবেন। শুক্রবার এ তথ্য জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। অন্যদিকে, চট্টগ্রাম বন্দরে ‘অ্যালার্ট-২’ জারি করা হয়েছে।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট