Tuesday, May 21, 2024

১ টাকা কেজি দরেও বিক্রি হচ্ছে না ঢেঁড়স, রাস্তায় গরুকে খাওয়াচ্ছেন ঢেঁড়স

জামাইষষ্ঠীর দু’দিন আগে মাছ-মাংসসহ অন্যান্য নিত্য সবজির দাম যখন আকাশচুম্বী তখন কদর হারিয়েছে ঢেঁড়স। এতেই মহাবিপাকে পড়েছেন পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ির ঢেঁড়স চাষীরা। খুচরা বাজারে দাম থাকলেও পাইকারি হাটে কেউ কিনতেই চাইছে না এ সবজি। ১০০ কেজি ঢেঁড়স বিক্রি করে উঠছে না ন্যূন্যতম যাতায়াতের খরচ। ফলে রাস্তায় ফেলে দিয়ে গরুকে খাওয়াচ্ছেন কৃষক। মঙ্গলবার এমন ছবি দেখা গেছে পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার ধুপগুড়ি হাটে।

মাছ-মাংস-সহ অন্যান্য নিত্য সবজির দাম যখন আকাশচুম্বী তখন একমাত্র ব্যাতিক্রম ঢেঁড়স। খুচরো বাজারে দাম থাকলেও পাইকারি বাজারে কেউ কিনতেই চাইছেন না এ সবজি। এতেই মহাবিপাকে পড়েছেন জলপাইগুড়ি জেলার ঢেঁড়স চাষীরা।

এই জেলার এক কৃষক জানালেন, ১০০ কেজি ঢেঁড়স বিক্রি করে উঠছে না ন্যূন্যতম যাতায়াতের খরচ। ফলে রাস্তায় ফেলে দিয়ে গরুকে খাওয়াচ্ছেন ওই কৃষক। মঙ্গলবার এমন ছবি দেখা গেছে জলপাইগুড়ি জেলার ধুপগুড়ি হাটে। কৃষকদের অভিযোগ- মঙ্গলবার সকালে পাইকারি হাটে পাঁচ টাকা করে কেজিতে ঢেঁড়স বিক্রি হয়। বেলা বাড়লে কেজিপ্রতি এক টাকা দিতেও রাজি ছিলেন না পাইকাররা। যদিও একই সময় খুচরো বাজারে ১০ থেকে ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে ঢেঁড়স। এতেই ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন কৃষকরা।

তাঁদের বক্তব্য- গ্রামের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শহরের পাইকারি হাট পর্যন্ত আসতে তাঁদের যে টাকা খরচ হয়েছে সেই টাকা তো উঠবেই না, উল্টো সবজি বাড়িতে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে খরচ আরও বাড়বে।

শালবাড়ি এক কৃষক বলেন, ‘আমি এক বিঘা জমিতে ঢেঁড়স চাষ করেছিলাম। খরচ হয়েছিল ১০ থেকে ১২ হাজার টাকা। এক সপ্তাহ ধরে ঢেঁড়স বেঁচে যাতায়াতের খরচ তুলতে পারিনি। আমার মতো ৫০ জন কৃষক এই হাটে এসেছেন। কেউই দাম পাচ্ছি না। তাই রাস্তায় ফেলে দিয়েছি, গরু তো অন্তত খাচ্ছে।’

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট