Wednesday, June 7, 2023

এবার খিরা চাষে লাভবান নাটোরের চাষিরা!

এই গরমে খিরার তো কোনো তুলনাই চলে না। কম খরচে বেশি উৎপাদন ও বাজারে ভালো দামে বিক্রি করে লাভবান হওয়া যায় বলে কৃষকরা এর চাষে ঝুঁকছেন। নাটোরের সিংড়ায় ব্যাপক পরিমানে খিরা চাষ করা হয়েছে। চলতি মৌসুমে আবহাওয়া ভালো থাকায় ও গাছের কোনো রোগবালাই না হওয়ায় কৃষকরা বেশি ফলন পেয়েছেন।

সিংড়া উপজেলার বিয়াশ, আয়াশ, ডাহিয়া, সরিষা বাড়ী, বড়গ্রাম, আজিমপুর, ক্ষীরপোতা গ্রাম সহ আরো সকল গ্রামের মাঠে খিরার চাষ করা হয়েছে। এখানকার উৎপাদিত খিরা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে শতাধিক ট্রাকে করে প্রতিদিন ঢাকা, চট্টগ্রাম, বগুড়া,পাবনা, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন শহরে চলে যাচ্ছে। খিরা চাষে খরচ কম ও উৎপাদন বেশি হয় বলে এইসব এলাকার কৃষকরা এর বেশি আগ্রহী হয়েছেন।

চলতি বছর সিংড়া উপজেলায় প্রায় ১৭০ হেক্টর জমিতে খিরার চাষ হয়েছে। আবহাওয়া ভালো থাকায় ও গাছের কোনো রোগবালাই না হওয়ায় কৃষকরা বাম্পার ফলন পেয়েছেন। বর্তমান বাজারে কৃষকরা প্রতিমণ খিরা ৫০০-৬০০ টাকা দরে বিক্রি করতে পারছেন।

কৃষক আমজাদ হোসেন বলেন, আমি এবছর ১ বিঘা জমিতে খিরার চাষ করেছি। চাষে আমার প্রায় ৩৫ হাজার টাকার মতো খরচ হয়েছে। আশা করছি খিরা বিক্রি করে খরচ বাদে ৫০-৬০ হাজার টাকা লাভ করতে পারবো।

কৃষক জসিম আলী বলেন, খিরা চাষে খরচ কম লাভ বেশি হয়। তাই আমি প্রতি বছর খিরার চাষ করি। এখানকার উৎপাদিত খিরা ট্রাকে করে দেশের বিভিন্ন সরবরাহ করা হয়ে থাকে। আমিও ছাড়াও স্থানীয় আরো অনেক চাষিরা প্রতি বিঘা জমি ২০ হাজার টাকায় লিজ নিয়ে খিরার চাষ করে থাকেন।

সিংড়া উপজেলা কৃষি অফিসার সেলিম রেজা বলেন, খাল খননের ফলে এই এলাকার বন্যার পানি তাড়াতাড়ি নেমে যায়। তারপর কৃষকরা চলনবিলে খিরার চাষ করেন। কম খরচে চাষ করা যায় বলে কৃষকরা এর ব্যাপক পরিমানে চাষ করে থাকেন। চাষ করে সফলতার পাশাপাশি তারা লাভবানও হতে পারেন। আশা করছি আগামীতে এর চাষ আরো বৃদ্ধি পাবে। এখানকার কৃষকরা বিঘাপ্রতি ৪০-৪৫ হাজার টাকা লাভ করতে পারেন।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট