Wednesday, April 17, 2024

সংসারকেই বেশি প্রাধান্য দিচ্ছি এখন : মৌসুমী

আরিফা পারভিন জামান মৌসুমী- দেশীয় চলচ্চিত্রের উজ্জ্বল এক তারকা। একাধারে তিনি মডেল, অভিনেত্রী, গায়িকা ও পরিচালক এবং সমাজ সেবক। প্রিয়দর্শিনীখ্যাত নন্দিত এই নায়িকা এরইমধ্যে পার করেছেন ক্যারিয়ারের তিন দশক। তবে আগের মতো অভিনয়ে নিয়মিত নন তিনি। স্বামী-সন্তান আর সংসারেই বেশি মনোযোগী জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী। বর্তমানে তিনি অবস্থান করছেন আমেরিকায়। সেখানে তিনি মা, বোন ও সন্তানের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন। অনলাইনে দৈনিক বাংলার সঙ্গে কথা হয় এই তারকার-

যেভাবে কাটছে সময়…

বেশ ভালোই দিন কাটাচ্ছি। প্রায় ৫ মাস ধরে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছি। এখানে আমার পরিবারের প্রিয় কয়েকজন মানুষ রয়েছেন। এখানে মা, বোন, দুই সন্তান ফারদিন ফাইজাহকে পেয়ে বেশ উচ্ছ্বাস কাজ করছে মনে। তাদের সঙ্গে দারুণ সময় কাটছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র বসেও স্বামী ওমর সানীর কথা বেশ মনে পড়ছে। ফাঁকে ফাঁকে বিভিন্ন ধরনের শোতেও অংশগ্রহণ করার চেষ্টা করছি। আবার ব্যাটে-বলে মিলে গেলে সেখানে কাজও করছি। তবে এত কিছুর মধ্যেও আমার স্বামী ওমর সানীকে খুব মিস করছি। আমার দাতব্য প্রতিষ্ঠানটিরও অভাব অনুভব করছি।

যুক্তরাষ্ট্রেও শুটিং…

হ্যাঁ, এখানে আসার পরই দুটি কাজ করেছি। এরমধ্যে ‘অর্ধাঙ্গিনী’ নামের একটি মিউজিক্যাল ফিল্মেরও শুটিং শেষ করেছি। আপনারা নিশ্চয়ই জানেন, বিষয়টা নিয়ে বাংলাদেশের অনেক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছে। যখন শুটিং করি তখন এখানে শীতের পরিমাণ অনেক বেশি ছিল। মাইনাস ১০-১২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় বরফের মধ্যেও কষ্ট করে শুটিং করতে হয়েছে। এটা অনেক কষ্টসাধ্য ছিল।

দেশে ফেরা…

ঠিক কবে নাগাদ দেশে ফিরতে পারব, তা এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। এখানে আরও কিছু কাজ বাকি আছে। সেগুলো শেষ হলেই দেশে ফিরব। আমার দেশে ফেরার ওপর নির্ভর করছে আমার নতুন সিনেমা ‘সোনার চর’-এর মুক্তি। ছবিটি বেশি কিছু দিন আগেই সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। পরিচালক জাহিদ হোসেন জানিয়েছেন, আমার জন্য অপেক্ষা করছেন তিনি। আমি বাংলাদেশে গেলেই নাকি সময়-সুযোগ বুঝে সিনেমাটির মুক্তির তারিখ ঘোষণা করবেন। ছবির প্রচারণাতেও অংশ নিতে হবে আমাকে।

সোনার চরের গল্প ও চরিত্র…

এটি একটি জীবন ঘনিষ্ঠ সিনেমা। দর্শকদের মনকে ছুঁয়ে যাওয়ার মতো গল্প। সিনেমার কাহিনি ১৯৭৫ সালের পরবর্তী সময়ের। এখানে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছি আমি। ওমর সানী করেছেন আমার স্বামীর চরিত্রে। জাঁদরেল এক লাঠিয়ালের চরিত্র তার। এ ছবিতে জায়েদ খান মুক্তিযোদ্ধার চরিত্রে কাজ করেছেন। জাহাঙ্গীর সিকদার প্রযোজিত সোনার চর সিনেমার গল্পটি আমার মন ছুঁয়ে গেছে। তাছাড়া পরিচালক জাহিদ হোসেন অনেক গুণী ও মেধাবী পরিচালক। সবমিলিয়ে আমি কাজ করতে রাজি হই। এই ছবির মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর সিনেমায় অভিনয় করি। আশা করি, সিনেমাটি মুক্তি পেলে সবাই পছন্দ করবে।

ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা…

আমার কাছে এখন সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো আমার সংসার। সবার আগে আমার স্বামীসন্তান। এ ছাড়া প্রাধান্য দিচ্ছি সামাজিক কাজকে। এটাতে খুব আনন্দ পাই। পাশাপাশি রাজনীতি করার ইচ্ছা আছে। তবে সেটা দ্রুত নয়, আস্তে-ধীরে। আগে রাজনীতি বিষয়টিকে নিজের আয়ত্তে নিতে চাই।-দৈনিক বাংলা।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট