Monday, July 22, 2024

শেরপুরে লটকন চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের

শেরপুর জেলার গারো পাহাড়ি এলাকায় লটকন চাষ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। চাষের খরচ কম থাকায় এবং লাভজনক হওয়ায় লটকন চাষে ঝুঁকছেন কৃষকরা। আর ফলন ভালো হওয়ায় চাষিদের আগ্রহ যেমন বাড়ছে তেমনই দ্রুত প্রসার ঘটছে লটকন চাষের। শেরপুরে লটকন চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকদের।

লটকন চাষি হামিদুল্লাহ বলেন, ১৩/১৪ বছর আগে তার বাগানে ১২০টি লটকন চারা রোপন করেন। ৭/৮ বছর পরই ৩৫টি গাছে ফল দিতে শুরু করেছে। বছরে ৬০-৭০ হাজার টাকার লটকন বিক্রি করছি। আমার লটকনের বাগান দেখে আরও অনেক কৃষক আগ্রহী হয়ে উঠেছেন। আশা করছি সামনে ফলন আরও বৃদ্ধি পাবে।

কৃষক আলাউদ্দিন জানান, প্রত্যেক বছর তার বাগান থেকে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকার লটকন বিক্রি করছেন তিনি। লটকন চাষে কোন বাড়তি খরচ না থাকায় লাভের মুখ দেখছন তিনিও। অপর দিকে গারো পাহাড়রে ঐতিহ্যবাহী লটকন ফল এখন আর খুব একটা চোখে পড়ে না। এই লটকন ফল অত্যন্ত পুুষ্টকর একটি পাহাড়ি ফল। যে কোন ফলের চেয়ে অনেক লাভজনক লটকন চাষ করা। লটকন গাছে শীতের শেষে ফুল আসে এবং জুলাই-আগস্ট-সেপ্টেবর মাসে লটকন পাকে।

স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তারা বলেন, দেশিয় যে কোন ফলের চেয়ে লটকনের ফলন এবং র্বতমান বাজার মূল্য অনকে বেশি। তাছাড়া এই লটকন চাষে যে কোন ধরণের জমিতে চাষ করে ভাল ফলন পাওয়া সম্ভব। তাই এই ফল চাষে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়া সম্ভব।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট