Wednesday, May 22, 2024

রুমিকে হারিয়ে যা বললেন মীর সাব্বির

অভিনেতা অলিউল হক রুমির মাস তিনেক আগে কোলন ক্যান’সার ধরা পড়ে। তারপর থেকেই মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন তিনি। অবশেষে এই লড়াই থামল আজ। ফেরানো গেল না তাঁকে।

সোমবার (২২ এপ্রিল) ভোরে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন অভিনেতা। তাঁর মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে নাট্যাঙ্গনে। রুমিকে স্মরণ করে ফেসবুক লাইভে এসে কথা বলেন মীর সাব্বির। ক্যারিয়ারে অসংখ্য নাটকে একসঙ্গে অভিনয় করেছেন তাঁরা। সর্বশেষ তাঁদের দেখা মিলেছে সঞ্জিত সরকার পরিচালিত ‘চিটার অ্যান্ড জেন্টলম্যান’ ধারাবাহিক নাটকে।

যেখানে ‘রাজা চেয়ারম্যান’ চরিত্রে ছিলেন মীর সাব্বির। আর রুমি ছিলেন ‘বান্টি’ নামের একটি চরিত্রে। সদ্য প্রয়াত অভিনেতার কথা বলতে গিয়ে ফেসবুক লাইভেই কান্নায় ভেঙে পড়েন মীর সাব্বির। তিনি বলেন, ‘রুমি ভাইয়ের সঙ্গে আমার অসংখ্য স্মৃতি আছে। রুমি ভাইকে শেষবারের জন্য দেখে এখন আমাকে শুটিংয়ে যেতে হচ্ছে। এটাই করুণ বাস্তবতা। আজ রুমি ভাই চলে গেছে, এভাবে আমরা সবাই চলে যাব।’

রুমিকে শেষ দেখার প্রসঙ্গে টেনে মীর সাব্বির বলেন, ‘আমি এখন যে নাটকের শুটিং করতে যাচ্ছি সেখানে রুমি ভাইয়েরও অভিনয় করার কথা ছিল। কিন্তু তিনি চলে যাচ্ছেন বরগুনা, উনার মায়ের কবরের পাশে তাকে দাফন করা হবে। আমার নিজের বাড়িও বরগুনা, কিন্তু আমি তার জানাজায় যেতে পারলাম না। আমার অনুরোধ থাকবে যারা বরগুনায় আছেন রুমি ভাইয়ের জানাজায় অংশ নেবেন।’

জানা যায়, রুমি যখন স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন, তখন তাঁকে ঈদের দিন দেখতে গিয়েছিলেন মীর সাব্বির ও তাঁর স্ত্রী ফারজানা চুমকি।

এ কথা স্মরণ করে সাব্বির বলেন, ‘আমি তার সঙ্গে ঈদে হাসপাতালে গিয়েছিলাম দেখা করতে। তিনি সবাইকে ঈদ মোবারক জানিয়েছিলেন। সেই ভিডিওটা আমার কাছে এখনও আছে।’ এরপর আবারও কান্নায় ভেঙে পড়েন মীর সব্বির।

দুপুরের দিকে শুটিং স্পট থেকে আবারও লাইভে আসেন মীর সাব্বির। যেখানে সহশিল্পীরা রুমিকে স্মরণ করে কথা বলেন। তখন সাব্বিরসহ উপস্থিত ছিলেন মাসুম বাশার, ফারুক আহমেদ, আহসানুল হক মিনু, সঞ্জিত সরকার প্রমুখ। এ সময় অলিউল হক রুমির আত্মার শান্তিকামনা করে মোনাজাত করেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, খিলগাঁওয়ের শহীদবাগ জামে মসজিদে প্রথম জানাজা শেষে অলিউল হক রুমির মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয়েছে তাঁর গ্রামের বাড়ি বরগুনায়। সেখানেই চিরনিদ্রায় শায়িত হবেন অভিনেতা।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট