Wednesday, May 22, 2024

মিষ্টি কুমড়ার ফুলের চপ

অনেক ধরণের চপ তো আপনারা খেয়েছেন। কখনো মিষ্টি কুমড়ার ফুলের চপ খেয়েছেন? হাতের কাছে থাকা জিনিস দিয়ে খুব সহজেই বানিয়ে ফেলা যায় মজাদার কুমড়ার ফুলের চপ। তাহলে আসুন জেনে নিই, বানানোর উপকরণ এবং প্রক্রিয়া।

উপকরণ:

মিষ্টি কুমড়ার ফুল ২৫ টি, বেসন ১ কাপ, ময়দা ১/৪ কাপ, চালের গুঁড়া ১/৩ কাপ, পেঁয়াজ বাটা ১, টেবিল চামচ, আদা-রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, আধবাটা কাঁচামরিচ ১ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুঁচি ১ টেবিল চামচ, জিরা গুঁড়া ১/২ চা চামচ, মরিচের গুঁড়া ১ চা চামচ, হলুদের গুঁড়া ১/২ চা চামচ, পানি পরিমাণ মতো লবণ পরিমাণ মতো, সয়াবিন তেল ভাজার জন্যে পরিমাণ মতো।

প্রণালী:

– প্রথমেই মিষ্টি কুমড়ার ফুলগুলো ভালোকরে ধুয়ে নিন। এমন একটি পাত্রে রাখুন যেন ফুল থেকে পানি ভালো করে ঝরিয়ে নেয়া যায়।

– এরপর একটি পাত্রে বেসন, চালের গুরা, ময়দা একসাথে ভালোকরে মিশিয়ে নিন। তাতে পেয়াজ,আদা, রসুন বাটা, কাঁচামরিচ বাটা, ধনেপাতা কুঁচি, জিরা গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া, হলুদের গুঁড়া, লবণ একে একে সব উপয়াদানগুলো দেই। তাতে পরিমাণ মতো পানি দিয়ে একসাথে ভালো করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার ১০ মিনিটের জন্য পেস্টটি রেখে দিন।

– সসপ্যানে পরিমাণ মতো তেল দিয়ে চুলায় বসান। তেল গরম হয়ে এলে কুমড়া ফুল পেস্ট দিয়ে ভালো মতো কাভার করে তেলে ভেজে নিন।

– সবশেষে সসসহ গরম গরম পরিবেশন করুন মিষ্টি কুমড়ার ফুলের চপ।

উল্লেখ্য, মিষ্টি কুমড়ার মতোই এর ফুলও দেখতে উজ্জ্বল। এগুলো খাওয়াও যায়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে কুমড়ার ফুল সিদ্ধ করে, বেটে, রান্না করে কিংবা ভেজে খাওয়া হয়। এ ফুল অবশ্য কাঁচাও খাওয়া যায়।

ক্যাল.রির পরিমাণ খুব কম, ফ্যা.টের পরিমাণ না থাকায় এ ফুলটি খাবারের ভালো উৎস। কুমড়ার ফুলে সামান্য পরিমাণে প্রো.টিন এবং প্রচুর পরিমাণে খনিজ, যেমন- ফস.ফরাস, আয়.রন, সেলে.নিয়াম, ম্যাগনে.শিয়াম থাকায় এটি শরীরের জন্য দারুণ উপকারী। মিষ্টি কুমড়ার মতো এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটা.মিন বি১, বি ২, বি৬ রয়েছে।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট