Wednesday, April 17, 2024

ভাইরাল দিয়ে স্টারের জন্ম হয় না, তাদের মেয়াদ বড়জোর ১ বছর : আলমগীর

বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘ভাইরাল’ হওয়া নিয়ে চলছে এক অসুস্থ প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় গা ভাসিয়ে অনেকেই নিজেদের তারকা মনে করেন। তাদের নিয়ে বরেণ্য অভিনেতা আলমগীর বললেন, ‘ভাইরাল হয়ে কোনদিন স্টারের জন্ম হয় না।’

সম্প্রতি ঢাকা ১০ আসনের সাংসদ ও চিত্রনায়ক ফেরদৌসের উদ্যোগে ধানমন্ডি রবীন্দ্র সরোবরতে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন একুশে পদকপ্রাপ্ত নায়ক আলমগীর। সেখানেই অনুষ্ঠানের ফাঁকে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হোন এই অভিনেতা।

তার ভাষ্যে, ‘ভাইরাল হয়ে কোনদিন স্টারের জন্ম হয় না। আপনি ভাইরাল হয়ে কি হবেন। হঠাৎ ভাইরাল হয়ে বড়জোর এক বছর টিকে থাকা যায়। তারপর তারা হারিয়ে যাবে। তারা কোনোদিন টিকে থাকবে না। এটাই বাস্তব। কিন্তু অভিনয়-চলচ্চিত্র দিয়ে যারা মানুষের মনে জায়গা করে নেন তারা আজীবন টিকে থাকবে।’

বর্তমান সময়ে চলচ্চিত্রের সঙ্গে বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগ তুলনা করে অনেকেই অনেক ধরনের মন্তব্য করেন। বিশেষ করে চলচ্চিত্র বিষয়ক সভা-সেমিনারে প্রায় ৯৯ শতাংশ মানুষই বলেন; বর্তমান চলচ্চিত্রকে আবার ঘুরে দাঁড়াতে হবে। তবে এই কথার সঙ্গে পুরোপুরি ভিন্নমত পোষণ করেছেন বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগের নায়ক আলমগীর। একুশে পদকপ্রাপ্ত এই অভিনেতার মতে, বাংলা সিনেমা স্বর্ণযুগে ফিরে যাওয়া নয় বরং আরেকটি স্বর্ণযুগ তৈরি করা যার নাম হবে ‘ডিজিটাল স্বর্ণযুগ’।

আলমগীর বলেন, ‘চলচ্চিত্রকে আবার পেছনে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। আমি এই যুক্তিতে বিশ্বাসী নই। কারণ, পেছনে গেলে তো আমরা সেই সাদাকালোর যুগে চলে যাব। আমি এগিয়ে যেতে বিশ্বাসী। এখন যেটা আমাদের দরকার সেটা হল আরেকটি স্বর্ণযুগ তৈরি করা। তাহলে সিনেমা দেখতে দর্শক হলে আসবে।’

সিনেমায় ৫০ বছরের ক্যারিয়ার এই অভিনেতার। যে সময়ে তিনি সিনেমায় দাপিয়ে বেড়িয়েছেন সেসময় সিনেমায় ছিলো প্রেম-ভালোবাসা, কাঁন্না-হাসি ও পারিবারির বন্ধন। কিন্তু পরবর্তীতে সিনেমা চলে যায় অশ্লীলতার দিকে। বিশেষ করে বর্তমানে ওটিটির কন্টেন্টগুলোতে রয়েছে অশ্লীলতার অভিযোগ। তবে দিন শেষে অশ্লীলতাকে মানুষ ছুড়ে ফেলে দেবে বলেও জানালেন আলমগীর।

তার কথায়, ‘বড়পর্দা, ছোটপর্দা কিংবা ওটিটি; যেটাই বলেন না কেন অশ্লীল সবখানেই অশ্লীল। এই শব্দটা তো পরিবর্তন করতে পারবেন না। এটা একটা পর্যায়ে গিয়ে জনগণ ছুড়ে ফেলে দেবে। দর্শকদের বলবো আপনার হলে গিয়ে বাংলা ছবি দেখুন। ভবিষ্যতে আমরা ডিজিটাল স্বর্ণযুগ গড়ে তুলবো; এই চ্যালেঞ্জ আমাদের মাঝে আছে। এবং এই উৎসাহ আমরা প্রধানমন্ত্রী শেষ হাসিনার কাছে থেকেই পাচ্ছি।’

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট