Tuesday, May 21, 2024

পটল চাষে লাভবান গাইবান্ধার কৃষকরা!

বর্তমানে কৃষকরা মাচা থেকে পটল তুলে বাজারে বিক্রি করছেন। এতে বেশি উৎপাদনের পাশাপাশি ভাল বাজারদর থাকায় কৃষকরা আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন। পটল চাষে ঝুঁকছেন গাইবান্ধার চাষিরা। এই অঞ্চল বিভিন্ন সবজি উৎপাদনের জন্য বিখ্যাত। তাই এই জেলাকে শস্যভান্ডারও বলা হয়।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ সহ বিভিন্ন উপজেলায় ব্যাপক পরিমানে পটলের চাষ করা হয়েছে। কৃষকের জমিতে দোল খাচ্ছে পটলের সবুজ লতা-পাতা। অনেকে আবার পটল তুলে বাজারজাত করছেন। কৃষকরা জমিতে গাছের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন।

চলতি মৌসুমে জেলায় ৫ হাজার ৭৯৫ হেক্টর জমিতে শাক-সবজি চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হয়। তার মধ্যে প্রায় ৫২০ হেক্টর জমিতে পটলের চাষ হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এবছর পটলের চাষ বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলার ধাপেরহাট এলাকার কৃষক সাজু মিয়া বলেন, আমি এবছর ৬৫ শতক জমিতে পটলের চাষ করেছি। আশা করছি ৯০-৯৫ মণ পটল উৎপাদন হবে। যা বাজারে প্রায় দেড় লাখ টাকায় বিক্রি করতে পারবো। এখন পর্যন্ত ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

অন্যান্য আরো কৃষকরা বলেন, তারা অনেকদিন যাবত পটল চাষ করছেন। এর চাষে খরচ কম হয়। আর যা উৎপাদন হয় তাতে দ্বিগুণ লাভ করা যায়। এছাড়াও বাজারে বেশি দাম থাকায় তারা বিক্রি করে লাভবান হতে পারছেন। চলতি মৌসুমে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ভাল ফলন হয়েছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আবু তাহের মিয়া বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এবছর পটলের বেশি আবাদ করা হয়েছে। গত বছর কৃষকরা এর চাষে লাভবান হতে পেরে এবছর বেশি জমিতে চাষ করেছেন। আর বাজারে দরও ভাল। আমরা কৃষকদের সব ধরনের সহযোগিতা করছি। এবছরও বাম্পার ফলন পেয়েছেন।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট