Tuesday, April 23, 2024

আমাকে দমাতে পারছে না জন্যই আইডি হ্যা’ক করেছে : হিরো আলম

আলোচিত ইউটিউবার আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলমের ফেসবুক, টিকটক ও ইনস্টাগ্রামসহ সামাজিক মাধ্যমের ৯টি অ্যাকাউন্ট হ্যা’ক করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কার্যালয়ে গিয়েছেন তিনি।

আজ মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ২টার দিকে হিরো আলম ডিবি কার্যালয়ে প্রবেশ করেন। এ সময় গণমাধ্যমকে হিরো আলম বলেন, আমার ৯টি অ্যাকাউন্ট হ্যা’ক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ডিবির কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে আজ দুপুরে আসতে বলেছেন। হ্যাকারের সন্ধান পেয়েছি। তার বিরুদ্ধে মা’মলা করবো।

হিরো আলম জানিয়েছেন, গত ১৭ এপ্রিল ‘হিরো আলম’ নামে যে ফেসবুক পেজটি ছিল, সেটি হ্যা’ক করা হয়েছে। গতকাল (১ মে) সন্ধ্যায় তার ব্যক্তিগত ‘আশরাফুল হোসেন আলম’ নামে আইডিও হ্যা’ক করা হয়েছে। সেখানে বিভিন্ন লেখাও পোস্ট করেছে হ্যা’কাররা।

হিরো আলম বলেন, ‘যে ছেলেটা হ্যা’ক করেছে তার নাম মিঞা আসকার। তারা হ্যাকার গ্রুপ। তাদের বেশির ভাগই দেশের বাইরে থাকে। আসকার আমার কাছে ৫ লাখ টাকা চেয়েছিল। এই টাকা তাদের দিলে তারা এ কাজ আর করবে না। যেহেতু তারা দেশের বাইরে থাকে, তাদের নাকি আমরা কিছু করতে পারবো না।’

‘তারা দেশের বাইরে থাকে তো কি হয়েছে? তারা আজ হোক, কাল হোক দেশে আসবেই। তখন তাদের খুঁজে বের করতে পারবো। আর হিরো আলমের অ্যাকাউন্ট নষ্ট করলেই কি আর না করলেই কি? হিরো আলমকে পুরো বিশ্বের মানুষ চেনে। তারা আমার অ্যাকাউন্ট নষ্ট করে কি করতে পারবে? এই যে আপনারা আজকে ৫০ জন সাংবাদিক এখানে আছেন। আপনাদের মাধ্যমে অন্তত ৫ কোটি মানুষ তো আমাকে দেখবে। আমরা হয়তো একটু হয়রানী হতে হলো।’ বলেন হিরো আলম। এ ঘটনার পর ‘হিরো আলম’ নামে নতুন একটি পেইজ খুলেছেন হিরো আলম। হ্যা’কড অ্যাকাউন্টগুলো ফিরে পাওয়ারও চেষ্টা করছেন তিনি।

বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছেন কিনা জানতে চাইলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘হিরো আলম’ নামে যে পেইজটি ছিল সেটি হ্যাক হওয়ার পর ডিবি পুলিশ প্রধান হারুন স্যারকে জানাই, স্ক্রিন শট দেই। আজকের বিষয়টিও তাকে আমি স্ক্রিনশট দিয়ে রেখেছি। আসলে একটা চক্র দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্নভাবে আমার ক্ষতির চেষ্টা করছে। আমাকে দুর্বল করার চেষ্টা করছে। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি আল্লাহপাক কাউকে যদি না মারে কেউ কাউকে মারতে পারে না।’

আপনি কাউকে সন্দেহ করছেন কিনা? জানতে চাইলে হিরো আলম বলেন, ‘চক্রটা কে সেটা আমি জানি না। তবে এই ৯টি অ্যাকাউন্ট যে হ্যাক করেছে তার নাম মিঞা আসকার। তবে তাকে দিয়ে কে এই কাজটি করাচ্ছে সেটা আমি জানি না। তবে একটি চক্র অবশ্যই আছে।’

‘একটা চক্র চায় না হিরো আলমের জনপ্রিয়তা টিকে থাক। তারা হিংসা করে। যে তাকে আমরা এত গা’লি দিলাম, বকা দিলাম, হ্যা’রাজ করার চেষ্টা করলাম, তাকে মারলাম, তবুও তো তাকে দমাতে পারছি না। কিছু করলেও একটা ছবি ফেসবুকে ছাড়লেও ভাইরাল হয়। লাইভ করলেও ভাইরাল হয়। একটা ভিডিও পোস্ট করলেও ভাইরাল হয়। অনেকেই আমাকে দমাতে চেষ্টা করছে। দমাতে পারছে না জন্যই এখন আইডি হ্যা’ক করেছে।’ বলেন হিরো আলম।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট