Tuesday, April 23, 2024

অদম্য ইচ্ছাশক্তি নিয়েই এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে কলি

পঙ্গুত্বকে বাধা মনে না করে শারীরিক প্রতিবন্ধতাকে জয় করে হাতের বদলে পা দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষা দিচ্ছে কলি। জন্ম থেকেই হাতের আঙুল নেই, হাত বাঁকা কলম ধরতে পারে না। তবুও অদম্য ইচ্ছাশক্তি ও দৃঢ় মনোবল নিয়ে ডান পা দিয়ে লেখা শুরু করে। ইচ্ছাশক্তি ও দৃঢ় মনোবল থাকলে যে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছা যায়, তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ কলি রানী (১৬)।

কলি কাউনিয়া বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগ নিয়ে কাউনিয়া মোফাজ্জল হোসেন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে চলতি এসএসসি পরীক্ষা-২০২৩ এ অংশ নিয়েছে। সে উপজেলার হরিশ্বর গ্রামের মৃত মনোরঞ্জন বর্মণ ও রুপালি রানীর কন্যা। তার বাবা মারা গেছেন। তারা ৩ ভাই ৩ বোন। কলি রানী সবার ছোট।

কলির মা রুপালি রানী জানান, জন্ম থেকেই তার মেয়ের হাতের আঙুল নেই, হাত বাঁকা কলম ধরতে পারে না। মেয়ের অদম্য ইচ্ছাশক্তি ও দৃঢ় মনোবল নিয়ে ডান পা দিয়ে লেখা শুরু করে। ধীরে ধীরে লিখতে লিখতে সে দ্রুতগতিতে লেখার কৌশল আয়ত্ত করে। সে যখন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম যাওয়া শুরু করে। তখন তার সহপাঠীরা তাকে নিয়ে হাসাহাসি করত, উপহাস করত।

বাড়িতে ফিরে সে মন খারাপ করত। পরে শিক্ষকদের সার্বিক সহযোগিতায় সে সামনে এগিয়ে যাওয়ার প্রেরণা পায়। সহপাঠীরাও তাকে মেনে নিয়ে বন্ধুসুলভ আচরণ শুরু করে। ৫ম শ্রেণিতে সে ‘এ’ গ্রেড পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। সে একজন ডাক্তার হতে চায়। সে যেন ডাক্তার হয়ে মানুষের সেবা করতে পারে।

মোফাজ্জল হোসেন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব মো. আইয়ুব আলী বলেন, সে শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ায় শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী একজন কক্ষ পরিদর্শক পরীক্ষা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কক্ষে অবস্থান করেন। তাকে ৩০ মিনিট সময় বেশি দেওয়া হচ্ছে।

বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিক্ষার্থী হিসেবে কলি রানীর পরীক্ষা শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা মেনে গ্রহণ করা হচ্ছে। তার পরীক্ষার প্রতিটি খাতা আলাদা করে বোর্ডে পাঠানো হচ্ছে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মনোনীতা দাস।

এই সম্পর্কিত আরও খবর

সর্বশেষ আপডেট