হু’র মানচিত্রে ভারত থেকে বাদ জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) সম্প্রতি একটি মানচিত্র প্রকাশ করেছে। হু’র প্রকাশিত মানচিত্রে ভারত থেকে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ বাদ দিয়ে দেখানো হয়েছে। হিমালয় পর্বতের পাদদেশীয় এ অঞ্চলটিকে দেশটির মূল ভূখণ্ড থেকে পৃথক করার জন্য অন্য রং ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া আকসাই চীনের অংশেও ব্যবহার করা হয়েছে অন্য রং। আর এ নিয়েই এখন বিতর্ক শুরু হয়েছে। ভারত সরকারিভাবে এখনও বিষয়টি নিয়ে কোনো পদক্ষেপ না নিলেও বিভিন্ন মহল থেকে প্রতিবাদ উঠেছে এর বিরুদ্ধে। অনেকে মনে করছেন এর পেছনে প্রতিবেশি দেশ চীনের হাত থাকতে পারে।

ভারতের গণমাধ্যমে জানানো হয়েছে, নতুন দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু-লাদাখকে ভারতের মানচিত্রের বাইরে দেখিয়ে হু’র ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। মহামারি করোনার সংক্রমণের হার কোন দেশে কেমন সেই চিত্র তুলে ধরার জন্যই ম্যাপটি দেখানো হচ্ছে হু’র ওয়েবসাইটে। সেখানে ভারতের মূল ভূখণ্ডকে দেখানো হয়েছে নীল রঙে। এখানে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে ছাই রঙে দেখানো হয়েছে। সমস্যা দানা বাঁধার কারণ হচ্ছে চীনকেও দেখানো হচ্ছে ছাই রঙের ওপর নীল স্ট্রাইপে। এটি হচ্ছে মূলত চীনের প্রতীক।

এ নিয়ে ‘হু’ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, জাতিসংঘের মানচিত্রের নির্দেশিকা মোতাবেকই করা হয়েছে কাজটি। এই বিষয়টি নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ হয়েছেন বিদেশে ভারতীয় নাগরিকদের বিভিন্ন সংগঠন। প্রথমে বিষয়টি নজর আসে লন্ডনে কর্মরত এক তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞের। পরে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন গ্রুপে শেয়ার করতে থাকেন বিষয়টি। ওই বিশেষজ্ঞের মতে, বিষয়টি নজরে আসার পর মর্মাহত হয়েছি যে, হু’র মতো সংগঠন, যার প্রতি বিশাল দায়িত্ব, সেই সংগঠন কিভাবে এমন কাজ করতে পারে। এর পেছনে চীনের হাত থাকার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও আশঙ্কা করছেন অনেকে।

ওই তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ আরও জানিয়েছেন, চীন ও পাকিস্তান বিশাল অ্যামাউন্ট অনুদান দেয় ‘হু’কে। আর সীমান্ত ইস্যুকে সর্বদা তুঙ্গে রাখতে চায় চীন। এখানে চীনের হাত থাকতে পারে বলে মনে হচ্ছে আমার।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া / আরটিভি অনলাইন।

Previous articleপ্লেয়ার্স ড্রাফট শেষে দেখে নিন পাকিস্তান সুপার লিগের প্রতিটি দলের চূড়ান্ত স্কোয়াড
Next articleযৌবন আল্লাহর দেয়া অমূল্য নেয়ামত, হালাল পন্থায় উপভোগ করুন : আজহারী