সাধারণ মানুষের কষ্টে খারাপ লাগছে বাটলারের!

যাতায়াতে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হচ্ছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলেকে। আর মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের নিরাপত্তা ব্যবস্থা তো আরো কড়া। বলা যায় এক রকম নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রাখা হয়েছে। শুধু তাই নয়, ইংল্যান্ড দল কোথাও যাওয়ার আগে আশপাশের সড়কের গাড়ি আটকে দেওয়া হচ্ছে।

তাই সিগন্যালে আটকা পড়ছে নগরবাসী। এ বিষয়টি দৃষ্টি এড়ায়নি ইংল্যান্ডের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক জশ বাটলারের। কাল শুরু হচ্ছে ওয়ানডে সিরিজ। কিন্তু আজকের সংবাদ সম্মেলনেও ঘুরে ফিরে এল নিরাপত্তা প্রসঙ্গ।

তাঁদের নিরাপত্তার স্বার্থে ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। এটা বুঝতে পারছেন বাটলার, ‘কড়া নিরাপত্তার বিষয়টি তো খোলা চোখেই বোঝা যাচ্ছে। আমি খবরগুলো দেখছিলাম, সেখানে যে ছবিগুলো দেখেছি, সেটা দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টে দেয়।

এমন কিছু কখনো দেখতে চাই না। এটা খুব দুঃখজনক। তবে সবকিছুই ভালো মতো চলছে। আমাদের জন্য এখানে যাতায়াতের (যানজট) সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। এখানকার মানুষদের অনেক কষ্ট করতে হচ্ছে, যা তাঁদের জন্য খুব হতাশাজনক।’

বৃহস্পতিবার মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘আমাদের জন্য এখানকার মানুষের যাতায়াতের সমস্যা হচ্ছে এটা ঠিক। মানুষদের এই কষ্ট আমি দেখেছিও। এতে কিছুটা খারাপই লাগছে। তবে সবকিছু ভালো মতো চলছে এটা ভালোলাগার।’

অবশ্য এই নিরাপত্তা ব্যবস্থায় সন্তুষ্ট ইংল্যান্ড অধিনায়ক, ‘আমাদের জন্য যে নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে তা খুবই ভালো মানের। অবশ্য এমনটার প্রয়োজন ছিল। তাই এই বিষয়টি নিয়ে আমরা কখনোই ভাবিনি।’

সাধারণ মানুষ এই কষ্ট যে হাসিমুখে মেনে নিচ্ছে, এই ছবিও নিশ্চয়ই দেখেছে ইংল্যান্ড দল। মঈন আলীর কথায় হয়তো তাই বারবার উঠে এসেছে বাংলাদেশের মানুষের আতিথেয়তা। — বিডিলাইভ২৪