শুভ জন্মদিন অধিনায়ক মাশরাফি

বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সেরা অধিনায়ক, ১৬ কোটি বাঙলির আস্থার প্রতীক  ও ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’ খ্যাত মাশরাফি বিন মর্তুজার ৩৩ তম জন্মদিন আজ। বিশ্বের অন্যতম সেরা স্পেশালিস্ট পেস বোলার হিসেবে খ্যাতি রয়েছে তার। অসম্ভব ভালো মনের এ মানুষটি ১৯৮৩ সালের এইদিনে নড়াইল শহরে তার নানাবাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তবে এলাকায় তিনি কৌশিক নামেই বেশি পরিচিত। পাশাপাশি ২০১৪ সালের আজকের এই দিনে জন্ম নেন মাশরাফি ও সুমি দম্পত্তির দ্বিতীয় সন্তান সাহেল মর্তুজা। সেই অর্থে বাপ-বেটা দু’জনেরই জন্মদিন আজ।

মাশরাফি ২৮টি ওয়ানডে ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তাতেই সর্বকালের সেরা সফল অধিনায়কের তালিকায় মাশরাফির নাম এসে পড়েছে। সর্বকালের সেরার তালিকায় আসার জন্য ‘জয়-হারের’ শতাংশ হিসেবে ৭১.৪২ ভাগ সাফল্য ‘নড়াইল এক্সপ্রেসে’র। যেখানে মাশরাফি চার নম্বর স্থানটি দখল করে নিয়েছেন। ২৮ ম্যাচের ২০টিতেই জিতেছেন। ৮টিতে হেরেছেন। তার নেতৃত্বে টাইগাররা শুধু আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেই খেলার যোগ্যতা অর্জন করেনি, সেই সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে শক্তিশালী দল পাকিস্তান, ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা এবং সর্বশেষ আফগানিস্তানকেও হারিয়েছে।

তার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এশিয়া কাপ টি২০’র ফাইনালেও খেলেছেন। মাশরাফিকে নিয়ে আত্মজীবনীমূলক বই লিখেছেন ক্রীড়া সাংবাদিক দেবব্রত মুখপাধ্যায়। কেবল মাঠে নন,  জীবনবোধ, ও দর্শন সব ক্ষেত্রেই যে মাশরাফি অণুকরণীয় তা ফুটে উঠেছে এই বইয়ে। ২০০১ সালে চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একদিনের ক্রিকেটে অভিষেক হয় মাশরাফির। মাশরাফির বাবার নাম গোলাম মর্তুজা স্বপন। আর মায়ের নাম হামিদা মর্তুজা। নড়াইলে জন্ম নেয়া মাশরাফির ছেলেবেলা কেটেছে চিত্রা নদীর তীরে চঞ্চলতা আর দস্যিপণা করে। ছেলেবেলায় অবশ্য তার প্রিয় খেলা ছিল ফুটবল ও ব্যাডমিন্টন। মাঝে মধ্যে চিত্রা নদীতে সাঁতার কাটতেন।

তারুণ্যের শুরুতে ক্রিকেটের প্রতি তার আগ্রহ জন্মে, বিশেষত ব্যাটিংয়ে। যদিও এখন বোলার হিসেবেই তিনি বেশি খ্যাতি অর্জন করেছেন। এ শহরেরই সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজে পড়াশোনার সময় সুমনা হক সুমির সঙ্গে তার পরিচয়। এরপর দু’জনে ২০০৬ সালে বিবাহসূত্রে আবদ্ধ হন। তাদের ঘরে এক মেয়ে ও এক ছেলে আলো ছড়িয়েছে। বড় মেয়ে হুমায়রা। আর ছোট ছেলের নাম সাহেল মর্তুজা।