লালমনিরহাটে গ্রাম পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেল এক ছাত্রী!

আজিজুল ইসলাম বারী, লালমনিরহাট প্রতিনিধি: লালমনিরহাট সদর উপজেলায় খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল সাবিনা খাতুন (১৩) নামে ৬ষ্ঠ শ্রেনী এক মাদ্রাসা ছাত্রী।বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের কালমাটি গ্রামে বিয়ের আয়োজন চলাকালে গ্রাম পুলিশ অভিযান চালিয়ে বাল্য বিয়েটি বন্ধ করেন।

উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের কালমাটি গ্রামের সেকেন্দার আলীর মেয়ে সাবিনা খাতুন। সে কালমাটি দাখিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী।এলাকাবাসী জানান, সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের কালমাটি গ্রামের সেকেন্দার আলীর বাড়িতে কালমাটি দাখিল মাদরাসার ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী সাবিনা খাতুনকে বিয়ে দেয়ার জন্য আয়োজন চলছিল।

এমন খবরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) শফিকুল ইসলামকে অবগত করলে গ্রাম পুলিশ ও মাদ্রাসার কয়েকজন শিক্ষকের সহযোগীতায় বৃহস্পতিবার মধ্য রাতে ওই বাড়িতে গিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধ করেন। পরে সাবিনা খাতুন বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পান।এদিকে সাবিনা খাতুন প্রাপ্ত বয়স্কা না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিবে না বলে তার বাবা সেকেন্দার আলীর ও মা শাহারা খাতুনের কাজ থেকে মুছলেকা নিয়ে তাদের ছেড়ে দেন।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ওই মাদ্রাসা সুপার বাল্য বিয়ের খবর দিলে আমি সুপার মিজানুর রহমান ও গ্রাম পুলিশকে সাথে নিয়ে বাল্য বিয়ে বন্ধের নির্দেশ দেই।