মহাসড়কে নেমে মহড়া দিচ্ছে পাকিস্তানের যুদ্ধবিমান!

কাশ্মীরের উরিতে জঙ্গি হামলায় ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পর ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে এখন যুদ্ধের আবহ। যদিও কোনো দেশ এখন পর্যন্ত সীমান্ত বিষয়ে আক্রমণাত্মক সিদ্ধান্ত নেয়নি। কিন্তু দুই দেশের সংবাদমাধ্যমই ছড়াচ্ছে যুদ্ধের ‘দামামা’।

পাকিস্তানে আঘাত হানার প্রস্তুতি বিষয়ে এর মধ্যেই ভারতের সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে। এবার পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডন অনলাইনও জানালো পাকিস্তানের যুদ্ধবিমানের রাস্তায় নেমে বিশেষ মহড়ার খবর।

দেশ দুটির মধ্যে উত্তেজনার এই সময়ে বুধবার পাকিস্তানের উত্তরাঞ্চলের রাস্তায় নেমে মহড়া দেয় দেশটির বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমান। বিমানবাহিনীর এই বিশেষ মহড়ার পরিপ্রেক্ষিতে গুঞ্জন উঠেছে, তবে কি পরমাণু বোমার মালিক প্রতিবেশী দেশ দুটির যুদ্ধ আসন্ন?

যদিও যুদ্ধবিমানের রাস্তায় নেমে আসা প্রসঙ্গে বিমানবাহিনী কর্তৃপক্ষ জানান, এটা ছিল বিমানবাহিনীর  প্রশিক্ষণ মহড়া ‘হাইমার্কের’ একটি অংশ। যুদ্ধকালীন অবস্থায় বিমানবাহিনীর জরুরি অবতরণ বিষয়ক এ মহড়া দেওয়া হয়।

ডন জানায়, সাধারণত যুদ্ধকালীন অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তান বিমান বাহিনী এই ধরনের মহড়ার আয়োজন করে এবং এ ধরনের মহড়ার জন্য এক মাসেরও বেশি প্রস্তুতিকালীন সময় নেওয়া হয়।

খবর এসেছে দুই দেশের উত্তেজনার মধ্যে দেশটির সামরিক বাহিনীতে অঘোষিত এক ‘বিশেষ সতর্কাবস্থা’ চলছে। যদিও ডনের জিজ্ঞাসায় সেনাবাহিনী বা বিমানবাহিনীর কেউই এ খবর স্বীকার করেননি। তবে দুই দেশের যুদ্ধ আশংকায় এরই মধ্যে দরপতন ঘটেছে পাকিস্তানের শেয়ারবাজারে।

যুদ্ধাবস্থার খবরটি অস্বীকার করে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তা ডনকে বলেন, আমার জানামতে পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে কোনো ধরনের সতর্কতা ঘোষিত হয়নি। তবে ভারতের পক্ষ থেকে ক্রমবর্ধমান হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে অঘোষিত এক ধরনের ‘চরম সতর্কতা’ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। তবে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে শিগগিরই এই ধরনের ঘোষণা আসতে পারে বলেও জানান তিনি। – ntv