বিরল ঘটনা, ওয়ানডে ক্রিকেটের ৪৫ বছরে এই প্রথম!

এক ম্যাচেই এতো কিছু!  ক্রিকেট প্রথমবারের মত বিরল এক ঘটনার সাক্ষী হলো বাংলাদেশ-আফগানিস্তান সিরিজের প্রথম ওয়ানডে। ওয়ানডে ক্রিকেটের ৪৫ বছরের ইতিহাসে এমন ঘটনা এই প্রথম! ঘটনাটি হলো মিরপুরে রোববারের এই ম্যাচে দুই দলই তাদের ইনিংসের শেষ বলে অলআউট হয়েছে।

মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে শেষ বলে অলআউট হওয়ার আগে ২৬৫ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে আফগানিস্তানও শেষ বলে অলআউট হয় ২৫৮ রানে। ৭ রানের জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে এগিয়ে গেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল।

এই ম্যাচের আরো কিছু রেকর্ড:

ইতিহাসের প্রথম বোলার হিসেবে তিন ফরম্যাটে দেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারি হয়েছেন সাকিব আল হাসান। টানা ছয়টি ওয়ানডে জিতল বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের সবচেয়ে বেশি টানা জয়ের রেকর্ড ৯টি, ২০০৬-০৭ মৌসুমে। বাংলাদেশের ৭ রানের জয় সহযোগী দেশের বিপক্ষে টেস্ট খেলুড়ে দলের দ্বিতীয় ছোট জয়। ২০০৯ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ৩ রানের জয় সবচেয়ে ছোট।

১৭ বছর ২ দিন- এই বয়সে ওয়ানডে অভিষেক হয়েছে আফগান পেসার নাভীন-উল হকের। আফগানিস্তানের সর্বকনিষ্ঠ ওয়ানডে অভিষিক্ত ক্রিকেটার তিনিই। তিনি ভেঙে দিয়েছেন রশিদ খানের ১৭ বছর ২৮ দিনের রেকর্ড।

মিরপুরে ওয়ানডেতে মুশফিকুর রহিমের স্টাম্পিংয়ের সংখ্যা ১৯টি, যা ওয়ানডেতে একক ভেন্যুতে কোনো উইকেটকিপারের সর্বোচ্চ।

মিরপুরে ওয়ানডেতে তামিমের রান ২১৩৬, যা ওয়ানডেতে একক ভেন্যুতে কোনো ব্যাটসম্যানের পঞ্চম সর্বোচ্চ।

ওয়ানেতে সাকিবের উইকেট-সংখ্যা ২০৮, যা বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ। তিনি ছাড়িয়ে গেছেন আব্দুর রাজ্জাকের ২০৭ উইকেট।

হাশমতউল্লাহ শাহিদি ও রহমত শাহর তৃতীয় উইকেট জুটির রান ১৪৪, যা ওয়ানডেতে তৃতীয় উইকেটে আফগানিস্তানের সর্বোচ্চ রানের জুটি। আগের সর্বোচ্চ ছিল আসহার জাইদি ও নাসির জামিলের অবিচ্ছিন্ন ১০৪ রান, ২০১৫ সালে স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে।