বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমা হচ্ছে এটাই অনেক বড় সাফল্য : রিয়াজ

‘বঙ্গবন্ধু একটা চেতনার নাম, বিশ্বাসের নাম। বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ। ২১ বছর আমাদের সত্য ইতিহাস ভুলিয়ে রাখার চেষ্টা করা হয়েছিল। ক্ষমতালোভী অভিশপ্ত মানুষ ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে। তারা ভেবেছিল সত্যের বাতি নিভে যাবে। কিন্তু যায়নি। বরং সেটা আজ অনেক বেশি উজ্জ্বল। যার প্রমাণ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষের আজকের আগ্রহ ও উচ্ছ্বাস। সে জায়গা থেকে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমা নির্মিত হচ্ছে এটা দারুণ একটি ব্যপার।’

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বায়োপিক নিয়ে নিজের মতামত জানাতে গিয়ে এভাবেই বলছিলেন চিত্রনায়ক রিয়াজ। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের জন্য গঠিত চলচ্চিত্র ও তথ্যচিত্র উপ-কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন রিয়াজ।

তিনি বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক নিয়ে জাগো নিউজের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘যে মানুষটা তার জীবনের ২৩ বছর পরিবারের সঙ্গে থাকতে পারেননি, দেশের জন্য কারাবরণ করেছিলেন তিনিই আমাদের বঙ্গবন্ধু। হাজার বছরের সেরা বাঙালি তিনি। তার ব্যক্তি ও রাজনৈতিক- দুই সত্তাই আলোকিত। এর চর্চা হওয়া জরুরি। তাহলে ভবিষ্যতে যারা দেশ পরিচালনা করবে তারা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারণ করতে পারবে।’

রিয়াজের মতে, ‘বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক নির্মাণ হচ্ছে। আমি সাধুবাদ জানাই এ উদ্যোগকে। আমার মনে হয় ছবিটা আরও অনেক আগেই হওয়া উচিত ছিল। খুশির খবর হলো অবশেষে ছবিটা হচ্ছে। যারা এ ছবির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছেন তাদের সবাইকে আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা।’

ছবিটি একজন বিদেশি পরিচালক নির্মাণ করছেন, ভারতের শ্যাম বেনেগাল। এর শিল্পী বাছাই নিয়েও আলোচনা-সমালোচনা শোনা যাচ্ছে। আপনি কী ভাবছেন? ‘সবে কাজটা শুরু হয়েছে। শেষ হওয়া উচিত। তারপর মূল্যায়ন করা যাবে যাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে তিনি কতোটা প্রত্যাশা পূরণ করতে পারলেন। ছবিটা দেখে তারপর বলা যাবে যে এটা কেমন হলো। আমি মনে করি ছবিটা কেমন হবে, সেটা বড় কথা নয়। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমা হচ্ছে এটাই অনেক বড় সাফল্য। একটা শুরু হচ্ছে, পরে আরও অনেক হবে।

তাছাড়া বঙ্গবন্ধুর পুরো জীবন একটা ছবিতে আনা হয়তো সম্ভব নয়। কমপক্ষে ২০টা ছবি বানালে হয়তো তার জীবনটা পুরোপুরি তুলে ধরা সম্ভব। আমি মনে করি এখনো আলাদাভাবে ছবি বানানোর সুযোগ রয়ে গেছে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে। যেটা শুরু হয়েছে সেটা শেষ হোক। দেখা যাক কেমন হয়। যদি দেশবাসীর বা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসীদের মন না ভরে তাহলে আরও তো সুযোগ থাকছেই।’

সবশেষে তিনি বলেন, ‘কোনো রকম বিতর্ক বা সমালোচনা তৈরি না করে এটাও মনে রাখা উচিত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চেয়ে কেউ নিশ্চয়ই বঙ্গবন্ধুকে বেশি ভালোবাসতে পারেন না। কারণ তিনি কন্যা। তিনি যাদের ওপর এ ছবির জন্য ভরসা করতে পেরেছেন আমাদেরও ভরসা রাখা উচিত। আমার ধারণা এটা অবশ্যই ভালো একটা ছবি হবে।’

সূত্র: জাগোনিউজ২৪