পেস নির্ভর একাদশেরই ইঙ্গিত মাশরাফির

ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা স্পিনে দুর্বল, স্বাভাবিকভাবে এমনটা মনে হলেও বাস্তব অর্থে বিষয়টি সত্য নয়। কেননা গত কয়েক বছর ধরেই ইংল্যান্ডের অনেক ক্রিকেটার বাংলাদেশ-ভারত-শ্রীলঙ্কাতে টি-টোয়েন্টি লিগ কিংবা ঘরোয়া টুর্নামেন্টে অংশ নিচ্ছে।

উপমহাদেশের কন্ডিশনে খেলার সঙ্গে বাঁহাতি স্পিনারদের বিপক্ষেও খেলেছে তারা অনেকবার। সেক্ষেত্রে শুক্রবার প্রথম ওয়ানডেতে পেসারদের ওপর হয়তো ভরসা রাখবেন মাশরাফি। বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে এমন কিছুরই ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন বাংলাদেশে অধিনায়ক।

উইকেট ঠিক কেমন আচরণ করবে, এই মূহুর্তে এটা বলা মুশকিল। কেননা বৃহস্পতিবার সারা দিন একটু পর পর বৃষ্টি হয়েছে। রাতেও বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। বৃষ্টি হলে উইকেট ভেজা থাকার সম্ভাবনা যথেষ্ট। যার ফলে উইকেট স্লো হবে। তখন বদলাতে হবে মাশরাফিদের রণকৌশলও।

দুই দলের অধিনায়ক কেউই এটা নিয়ে ভাবছেন না। সকালে উইকেট দেখেই একাদশ সাজানো হবে বলে জানিয়েছেন তারা। মাশরাফি অবশ্য কিছুটা ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন সংবাদ সম্মেলনে, ‘গত দুই বছর বাংলাদেশের উইকেট দেখলে বোঝা যাবে, খুব বেশি টার্নিং উইকেট ছিল না।

আমরা স্পোর্টিং উইকেটে খেলেছি এবং আমাদের ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছে। আমি তাই মনে করি না, আমাদের শক্তিমত্তা শুধু স্পিনেই। আমাদের সব বিভাগই ভালো করছে। আমরা গোটা দলের ওপরই ভরসা করছি।’

গত কিছু দিন রুবেল-মাশরাফি-তাসকিন-আল আমিনরা পেস আক্রমণের নেতৃত্ব দিচ্ছে। তাই মাশরাফি স্পষ্টভাবেই জানালেন, ‘যারা ভালো করছে, তাদেরকে ধরে রাখা প্রয়োজন আমাদের। এখানেও ভালো না করার কারণ নেই। এই উইকেটেই ভালো করেছে।

খারাপ দিন যেতেই পারে, তবে ওদের (পেসার) ওপর আমাদের আস্থা রাখতে হবে। ইংল্যান্ডের ওপর আমাদের শ্রদ্ধা আছে শতভাগ। একই সঙ্গে আমরা আমাদের শক্তির জায়গা নিয়েও ভাবছি। খারাপ দিন আসতেই পারে, তবে আমরা ইতিবাচকভাবেই ভাবছি।’

গত বছর অক্টোবরে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিরিজের উদাহরণ টেনে মাশরাফি বলেছেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কিছুটা স্লো উইকেট যখন ছিল প্রথম ওয়ানডেতে, আমরা স্ট্রাগল করেছি। এখন যে আবহাওয়া, বৃষ্টির ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে। তাই বলতে পারছি না।

যেটাই হোক, আমি বিশ্বাস করি আমাদের জন্য কঠিন হলে তাদের জন্যও কঠিন হবে। এটা ভেবেই আমরা নামব। যেমন উইকেটেই হোক আমরা সংগ্রাম করলে ওরাও করবে।’