নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে ভারতের সার্জিক্যাল স্ট্রাইক, বিধ্বস্ত জঙ্গিরা

নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি ঘাঁটিতে আঘাত হানল ভারতীয় সেনাবাহিনী। বুধবার রাতে সেনা এই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালিয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতীয় সেনার ডিজিএমও রণবীর সিংহ। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গিদের একাধিক লঞ্চিং প্যাডে ভারতীয় সেনা এই ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ চালিয়েছে। ভারতের এই অভিযানে জঙ্গিদের বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলেও ডিজিএমও জানিয়েছেন।

ভারত যে ধরনের হামলা চালিয়েছে, তাকে সামরিক পরিভাষায় ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ বলা হয়। অর্থাৎ নিয়ন্ত্রণ রেখার ও পারে পাক সরকারের মদতে যে সব জঙ্গি পরিকাঠামো তৈরি হয়েছে, সেগুলিকে নিশানা করেই হামলা চালানো হয়েছে। রণবীর সিংহ বলেছেন, ‘‘পাক অধিকৃত কাশ্মীরে জঙ্গি গতিবিধির সুনির্দিষ্ট খবর ছিল আমাদের কাছে। বহু জঙ্গি নিয়ন্ত্রণ রেখার কাছে বিভিন্ন লঞ্চিং প্যাডে এসে ভারতে ঢোকার চেষ্টায় ছিল।

জম্মু-কাশ্মীরে এবং বারতের অনেকগুলি বড় শহরে নাশকতা চালানোর পরিকল্পনা ছিল তাদের। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতেই ভারতীয় বাহিনী নিয়ন্ত্র রেখা পেরিয়ে হামলা চালায়া। এই আক্রমণে বহু জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে।’’ ভারতীয় বাহিনীর এই হামলায় জঙ্গিরা শুধু নয়, তাদের সাহায্যকারীদেরও ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে সেনাবাহিনী জানিয়েছে। রণবীর সিংহ আরও জানিয়েছেন, অনুপ্রবেশ এবং সন্ত্রাস মোকাবিলায় ভারতের এই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চলবে।

গত রাতে যে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে যে হামলা চালানো হয়েছে, তা পাকিস্তানের ডিজিএমও-কে নিজেই জানিয়েছেন ভারতের ডিজিএমও রণবীর সিংহ। বার বার ভারতের অনুরোধ সত্ত্বেও পাক নিয়ন্ত্রিত ভূখণ্ডে জঙ্গি পরিকাঠামো ধ্বংস করতে ইসলামাবাদ কোনও পদক্ষেপ না করায়, ভারতকে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের সিদ্ধান্ত নিতে হল বলে পাকিস্তানকে জানিয়েছেন রণবীর সিংহ।

মোট পাঁচটি জঙ্গি ঘাঁটিতে গত রাতে হামলা চালিয়েছে ভারত। বহু জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে বলে সেনা সূত্রের খবর। ভারত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে হামলা চালানোয় পাক সেনাবাহিনীও প্রতিরোধের চেষ্টা চালিয়েছে। রাত আড়াইটে থেকে প্রবল গোলাবর্ষণ শুরু হয় দু’পক্ষের মধ্যে। বৃহস্পতিবার সকাল আটটা পর্যন্ত গোলা বিনিময় চলেছে বলে জানা গিয়েছে। পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ভারতের এই সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের তীব্র নিন্দা করেছেন। [ছবি: প্রতীকী] — আনন্দ বাজার