নিজের শেষ ওভারকে টার্নিং পয়েন্ট বলছেন সাকিব

৪৭তম ওভারে সাকিব আল হাসান যখন বোলিংয়ে এলেন তখন আফগানিস্তানের দলীয় রান ৫ উইকেটে ২৩৮।

সে সময়ে আফগানিস্তানের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ২৪ বলে ২৮ রান। আগের ৯ ওভারে মাত্র ২৫ রানে ২ উইকেট নেওয়া সাকিবের থেকে প্রত্যাশা ছিল দ্বিগুণ। বিশ্বের অন্যতম সেরা এ স্পিনার ঠিকই নিজের কাজটি করেছেন।

শেষ ওভারে মাত্র ১ রান দিয়েছেন সাকিব। প্রথম বলে মোহাম্মদ নবী লং অনে ঠেলে সিঙ্গেল নেওয়ার পর পরবর্তী পাঁচ বলে একটি রানও ব্যয় করেননি সাকিব। ব্যাটসম্যান ছিল প্রতিষ্ঠিত। আফগানিস্তান দলপতি আজগর স্টানিকজাই পরপর পাঁচটি বলে কোনো রান নিতে পারেননি।

ব্যাটিংয়ে ৪৮ ও বল হাতে ২ উইকেট নিয়ে বাংলাদেশের হাত থেকে ফসকে যেতে বসা ম্যাচ জিতিয়েছেন সাকিব। দিন শেষে ম্যাচসেরার পুরস্কারও উঠে তার হাতে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব জানান নিজের করা শেষ ওভারটি দুই দলের পার্থক্য গড়ে দিয়েছে।

সাকিব বলেন, ‘ওই এক ওভারে এক রান দেওয়া ছিল ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। এছাড়া ওদের বড় জুটির পর আমার ব্রেক থ্রু দেওয়া ছিল অন্যতম সেরা টার্নিং পয়েন্ট।’

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ৪৬ রানে ২ উইকেট হারালেও তৃতীয় উইকেটে ১৪৪ রানের জুটি গড়েন রহমত শাহ ও হাসমতউল্লাহ শাহিদী। এ জুটিতেই জয়ের স্বপ্ন দেখতে থাকে আফগানিস্তান। দলীয় ১৯০ রানে রহমত শাহকে ফিরিয়ে ব্রেক থ্রু এনে দেন সাকিব। এরপর মাত্র ৬৮ রান যোগ করতেই শেষ ৭ উইকেট হারায় আফগানিস্তান।