নদী রক্ষার দাবিতে গুরুদাসপুরে থেকে চারঘাট অভিমুখি নৌ-লংমার্চ কর্মসূচি পালন

শাকিল আহমেদ, নাটোর প্রতিনিধি: ‘নদী বাচাও, দেশ বাচাও’ এই স্লোগানকে সাথে নাটোরের গুরুদাসপুর থেকে রাজশাহীর পদ্মানদীর চারঘাট পয়েন্টে নন্দকুজা-বড়াল নদীর উৎস মুখে নির্মিত জলকপাট অপসারন সহ নদীরক্ষার চারদফা দাবিতে নৌ-লংমার্চ করেছে গুরুদাসপুর উপজেলা নদী রক্ষা কমিটি।

বুধবার সকাল ১০ টার দিকে গুরুদাসপুর পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী মোল্লার নেতৃত্বে চাঁচকৈড় নদীবন্দর থেকে অর্ধশতাধিক নৌকা যোগে নৌ-লংমার্চ চারঘাট অভিমুখি যাত্রা শুরু করে।

এ সময় আয়োজক সংগঠন নদীরক্ষা কমিটির সভাপতি আতাহর হোসেন,প্রধান উদ্যোক্তা মো.এমদাদুল হক মোল্লা,চলনবিল রক্ষা কমিটির সাধারন সম্পাদক মুজিবুর রহমান মজনু,উপজেলা চালকল মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক মো.সামছুল হক শেখ, উপাধ্যক্ষ আব্দুস সালাম সহ নানা শ্রেনী পেশার মানুষ এ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন করে।

পরে চার দফা দাবি সংবলিত একটি স্মারকলিপি প্রধানমন্ত্রী,চেয়ারম্যান জাতীয় নদী কমিশন সহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে পাঠান নদীরক্ষা কমিটি। চারঘাট জলকপাট সহ নন্দকুজা,আত্রাই গুমানী ও বড়াল নদীতে নির্মিত সকল
ক্রসবাধ ও রেগুলেটর অপসারন,ভরাট হয়ে যাওয়া এসব নদী সিএস রেকর্ডের ভিত্তিতে জরিপ করে অবৈধ দখল উচ্ছেদের মাধ্যমে নদীর নাব্যতা ফিরিয়ে আনার দাবি জানান আয়োজক কামটি।অন্যথায় পরবর্তীতে বৃহত্তর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেন তারা।

নৌ-লংমার্চটি বেলা ২ টার দিকে বড়াইগ্রামের রামাগাড়ি নামক স্থানে নির্মিত একটি জলকপাটে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে সেখানে তারা সমাবেশ করে। বড়াইগ্রাম জোয়ারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান চাঁদ মোহাম্মাদ এতে সভাপতিত্বে করেন।এসময় স্থানীয় লোকজন নদীরক্ষা  কমিটির সাথে একাত্নতা ঘোষনা করেন।