জানেন কি দিনে একটি কলা খেলেই আপনি কত উপকার পাচ্ছেন?

ঘরে ঘরে সবচেয়ে বেশি খাওয়া ফলগুলির মধ্যে কলা অন্যতম। ক্ষণিকের খিদে মেটাতে অনেকেই কলা খেয়ে থাকেন। সকালে ব্রেকফাস্টেও কলা অনেকেই খান। মরশুমি ফল না হওয়ায় সারাবছর সহজে পাওয়াও যায় কলা।

তাই এই ফলের চাহিদাও বেশি। কিন্তু অনেকেই জানেন না, খিদে দুর করা ছাড়াও কলার একাধিক পুষ্টিগত গুরুত্ব রয়েছে। কলা হল হাতে গোনা কিছু সংখ্যক ফলের মধ্যে অন্যতম যাতে ভরপুর পুষ্টি রয়েছে। এটি ভিটামিন-পটাশিয়ামে পরিপূর্ণ।

এছাড়া এতে প্রাকৃতিক শর্করা রয়েছে এবং রয়েছে ফাইবারও। শর্করা থাকলেও এটি ফ্যাট ও কোলেস্টেরল ফ্রি। কলাতে টিউমার নেক্রোসিস ফ্যাক্টর বেশি থাকায় তা ক্যানসার কোষের সঙ্গে লড়াই করে ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করে। আসুন জেনে নেই একটি করে কলা খাওয়া গেলে আপনি কত গুলো উপকার পেতে পারেন –

* অ্যাসিডিটি : আপনি যদি ক্রনিক অ্যাসিডিটির সমস্যায় ভোগেন তাহলে কলা খান। অনেকটা আরাম পাবেন।

* কোষ্ঠকাঠিন্য : আপনার যদি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকে তাহলে টানা ১ মাস প্রতিদিন ১টি করে কলা খান। কলার ফাইবার আপনার কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যাকে অনেকটাই দূর করবে।

* এনার্জি : কলা ভিটামিন, মিনারেল, ফাইবার, পটাশিয়ামের মতো একাধিক পুষ্টিতে পরিপূণ্য। তাই কলা আপনার শরীরকে প্রয়োজনীয় এনার্জি প্রদান করে। এবং আপনাকে বেশিক্ষণ স্ফূর্তিতে ভরিয়ে রাখে।

* রক্তচাপ : কলায় পটাশিয়াম প্রচুর পরিমানে থাকলেও সোডিয়াম খুব কম পরিমানে রয়েছে। যা রক্তের চাপ নিয়ন্ত্রণ করে স্ট্রোক হওয়া প্রতিরোধ করে।

* হজমে সাহায্য করে : কলায় থাকা পটাশিয়াম ও ফাইবার খাবার ভাল করতে হজম করাতে সাহায্য করে। প্রত্যেকদিন একটি করে কলা খেলে বদহজম আপনার থেকে ১০০ হাত দূরে থাকবে।

* অ্যানিমিয়া : রোজ কলা খেলে অ্যানিমিয়ার ঝুঁকি এড়ানো সম্ভব হয়। কলার আয়রন হিমোগ্লোবিনের উৎপাদন বাড়িয়ে শরীরে রক্ত সরবরাহ বৃদ্ধি করে।

* পেটের আলসার : পেটের ভিতরে কোনও ধরনের আলসার বা ঘা হওয়া থেকে রক্ষা করে কলা। যদি কোনও ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণের জন্যও এই ধরনের পেটের ঘা হয় তাও নিরাময় করে কলা।

* স্বাস্থ্যকর চোখ : কলায় ভিটামিন এ ভরপুর পরিমানে রয়েছে। যা চোখের পর্দা বা ঝিল্লিকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি কর্নিয়াকেও রক্ষা করে।