চরম হতাশ হাতুরুসিংহে, জাতীয় দলের অনিয়ম নিয়ে মুখ খুললেন এবার

বাংলাদেশ জাতীয় দলের দায়িত্ব নিয়েছেন দু্ই বছর পেরিয়ে গেছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সাথে হয়েছে আরো দুই বছরের চুক্তি। শেষ হওয়া চুক্তির দুই বছরে চান্দিকা হাতুরুসিংহের তত্ত্বাবধানে অনেক সাফল্যের মুখই দেখেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। সেই হাতুরুসিংহেই জাতীয় দলের পেশাদারিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তুললেন।

জাতীয় দল দিয়ে খেলোয়াড় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার ব্যাপারে রীতিমতো হতাশ লঙ্কান এই কোচ। তার মতে, জাতীয় দলে খেলোয়াড় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার ব্যাপারটি মোটেও ঠিক নয়। এটা হবে ঘরোয়া ক্রিকেটে। ঘরোয়া ক্রিকেটের পরীক্ষিত ক্রিকেটাররাই খেলবেন জাতীয় দলের হয়ে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে বাংলাদেশে জাতীয় পর্যায়ে চলে খেলোয়াড়দের নিয়ে পরীক্ষা!

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে নতুন খেলোয়াড় খোঁজাকে অপেশাদারিত্ব বলে অভিহিত করলেন হাতুরুসিংহে। বললেন, ‘আমি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলোয়াড়দের নিয়ে পরীক্ষা চালাতে পারি না। এটাই বাংলাদেশ ক্রিকেটের দুর্ভাগ্যজনক ব্যাপার। যার সম্মুখীন আমরা হচ্ছি। আমরা আসলে জাতীয় পর্যায়ে খেলোয়াড়দের পরীক্ষা করছি। এমনটা ঘটতে পারে না। এটা যেকোনো কিছুর চেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।’

অনেকদিন না খেলার প্রভাবের কথাও মনে কিরেয় দিলেন বাংলাদেশ কোচ, ‘আমাদের অনেকগুলো ইনজুরি সমস্যা আছে এবং খেলোয়াড়রা ফর্ম হারাচ্ছে। কারণ দীর্ঘদিন আমরা খেলিনি। আমি জানি না এখন ফাস্ট বোলাররা কোন পর্যায়ে আছে। এখন বিষয়টা দাঁড়িয়েছে আমাদের মধ্যে খেলোয়াড়দের ওপর যে আস্থা আছে, সেটার ওপরই নির্ভর করতে হবে। একইসাথে ধৈর্য্যশীল হতে হবে।’

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজটা বাংলাদেশের জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জেই। যদিও হাতুরুসিংহে এটাকে অজুহাত বানাতে নারাজ, ‘আমি এটাকে অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করতে চাই না। ম্যাচের পরিস্থিতি অনুযায়ী এটাকে শারীরিকভাবে উপস্থাপন করতে হবে। ম্যাচের জন্য নিজের আসল খেলাটার প্রস্তুতি নিয়ে থাকতে হবে। একজন ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলার জন্য প্রস্তুত থাকলে মানিয়ে নেয়াটা সহজ হবে।’

ওয়ানডেতে ভালো করলেও টেস্ট ফরম্যাটে বিস্ময়কর কিছু প্রত্যাশা না করার অনুরোধ জানিয়ে রাখলেন হাতুরুসিংহে, ‘রসদ না থাকলে পরিকল্পনা করা যায় না। দীর্ঘ সময় ধরে আমরা আমাদের কৌশলগুলো রপ্ত করতে থাকবো। আমাদের কাছ থেকে সরাসরি বিস্ময়কর কিছু প্রত্যাশা করবেন না। আমরা যদি জিততে পারি সেটা হবে দারুণ কিছু।’-dnn