কে কোন দল করে সেটা আমি দেখব না, অপরাধের শাস্তি পেতেই হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কে কোন দল করে সেটা আমি দেখি না, দেখবো না। যেই অপরাধ করুক না কেন শাস্তি পাবে। সিলেটে কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে কোপানোর ঘটনা প্রসঙ্গে বৃহস্পতিবার তিনি জাতীয় সংসদে এ কথা বলেন।

দশম জাতীয় সংসদের দ্বাদশ অধিবেশনের সমাপনী দিনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা মেয়েকে একটা ছেলে নির্মমভাবে কোপালো। এতোগুলো মানুষ দাঁড়িয়ে থেকে দেখেছেন, ছবি তুলেছেন। কারো মধ্যে মানবিক মূল্যবোধ জাগ্রত হলো না। এটা দুঃখজনক।

শেখ হাসিনা বলেন, কিছু লোক এটিকে দলীয় হিসেবে প্রচার করছে। সে তো দলীয় হিসেবে এ কাজ করেনি। প্রেমে ব্যর্থ হয়ে ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে এটা করেছে। দেশবাসীকে আমি বলব, কে কোন দল করে সেটা আমি দেখি না, দেখব না। যেই অপরাধ করুক না কেন শাস্তি পাবে। আর অভিভাবকদের বলব, আপনারা আপনাদের ছেলে মেয়েদের খোঁজ-খবর রাখেন।

প্রসঙ্গত, ৩ অক্টোবর সিলেট এমসি কলেজ মসজিদের পেছনে মানুষের সামনে দা দিয়ে কলেজছাত্রী খাদিজাকে কোপাতে থাকে বদরুল আলম। গুরুতর আহত খাদিজাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে ওসমানী হাসপাতালে ও পরে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে নার্গিসকে স্কয়ার হাসপাতালে নিয়ে আসার পরেই মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার করা হয়। এর পর তাকে ৭২ ঘণ্টার নিবিড় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়।

এ ঘটনায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যাছলয়ের (শাবি) ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলমকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া বদরুলকে আসামি করে শাহপরাণ থানায় মামলা দায়ের করেছেন খাদিজার চাচা আব্দুল কুদ্দুস।

বুধবার সংসদে সরকারি দলের সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরীর এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘খাদিজার চিকিৎসার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেওয়াসহ ব্যক্তিগতভাবে সিলেট জেলা প্রশাসকের সঙ্গে এ বিষয়ে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে আসছি। ইতোমধ্যে হামলাকারী দুর্বৃত্তকে গ্রেফতার হয়েছে। তার বিরুদ্ধে সকল আলামত থাকায় দ্রুত এ মামলায় চার্জশিট প্রদান করা সম্ভব হবে।’

এদিকে, কলেজছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে স্কয়ার হাসপাতালের আইসিইউতে দেখতে গিয়ে সাংসদ ও মহিলা লীগের নেত্রী সাবিনা আক্তার তুহিনের সেলফি তোলার ঘটনায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তীব্র সমালোচনার ঝড় বইছে। বুধবার সন্ধ্যায় ছবিটি ফেসবুকে পোস্ট করেন তিনি। তার সঙ্গে ছিলেন যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সাংসদ অপু উকিলসহ আরও এক নারী। — প্রিয়