‘কল্পনাও করিনি যে ক্যাচটা সে ছেড়ে দেবে’

কাল আফগানিস্তানকে প্রথম থেকেই দারুণ চাপে রেখেছিলেন তামিম। এমনটা এখন যেন রীতিই হয়ে গেছে, তামিম ভালো করলেই বাংলাদেশ জয় পায়। কালও যেমন বাংলাদেশের বড় জয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখলেন বাঁহাতি ওপেনার।

ম্যাচ শেষে তামিম বললেন, আফগানিস্তানের বিপক্ষে এই জয় বেশ কাজে দেবে ইংল্যান্ড সিরিজে, ‘আমাদের এভাবেই জেতা উচিত ছিল। প্রথম বা দ্বিতীয় ম্যাচে সন্দেহ নেই, তারা ভালো খেলেছে। আজ আমরা অনেক ভালো অবস্থায় ছিলাম। তবে আরও কিছু কিছু জায়গায় আমরা উন্নতি করতে পারি। আমাদের জন্য এটা বাঁচা-মরার ম্যাচ ছিল। সামনে একটা বড় সিরিজ আছে। এই জয়ে সবার আত্মবিশ্বাস ফিরে এসেছে।’

মোহাম্মদ নবীর বলে তামিম যখন জীবন পেলেন তখন তার রান মাত্র ১। আসগর স্টানিকজাইয়ের শিশুতোষ ভুলের সুযোগে বাঁহাতি ওপেনার পরে সেঞ্চুরি করে ফিরেছেন। তামিম অবশ্য নিজেও ভাবতে পারেননি এমন একটা সুযোগ পাবেন, ‘সাধারণত আমি জীবন পেলে ভালো কিছু করতে পারি না। আমার রেকর্ডও তাই বলে। কল্পনাও করিনি যে ক্যাচটা সে ছেড়ে দেবে। নিজেকে বুঝিয়েছিলাম, দিনটা আমার হবে। আমি তখন ১ রানে ছিলাম। ভেবেছিলাম, আরও অনেক দূর যেতে হবে।’

তামিম শেষ পর্যন্ত অনেক দূর‌ই গেছেন, তার হাত ধরে বাংলাদেশও পেয়েছে দুর্দান্ত জয়। তবে স্টানিকজাই হতাশ হচ্ছেন না; বরং আফগান অধিনায়ক এই সিরিজ থেকে খুঁজে পাচ্ছেন প্রাপ্তির অনেক নুড়িপাথর, ‘আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ ছিল এটি। প্রথম দুই ম্যাচে ওদের জন্য পরিস্থিতি অনেক কঠিন করে দিয়েছি। এই ম্যাচগুলো আমাদের অভিজ্ঞতা অনেক বাড়িয়ে দেবে।’