এবার কাশ্মির সীমান্তে জঙ্গি নিধনে ‘সার্জিকাল অপারেশন’ নিয়ে ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি

কাশ্মিরে ভারত-পাকিস্তান সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় ভারতীয় সেনা বাহিনীর ‘সার্জিকাল অপারেশন’ বা বিশেষ অভিযানে বেশ কয়েকজন জঙ্গি এবং ২ পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়েছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়েছে।

ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা ভারতীয় সেনা কর্তৃপক্ষের বরাতে জানিয়েছে ওই অভিযানে কমপক্ষে ৩৫ জঙ্গি নিহত হয়েছে। কিন্তু বিশ্ব গণমাধ্যমে জঙ্গি নিহত হওয়ার কোনো খবর এখনো আসেনি।

জঙ্গি দমনেই এই বিশেষ অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ভারতের একজন উচ্চ পদস্থ সেনা কর্মকর্তা জানান,‘পাকিস্তান ভিত্তিক জঙ্গি হামলা ঠেকাতেই এই বিশেষ অভিযান চালানো হয়। এতে বেশ কয়েকজন জঙ্গি এবং তাদের মদদদাতা হতাহত হয়’।

তবে ভারতের এই বক্তব্য নাকচ করে পাকিস্তানের দাবি,‘ বিনা উস্কানিতে পাকিস্তানি সেনাদের ওপর গুলি চালানো হয় এবং এতে তাদের দুই সেনা সদস্য নিহত হয়’।

ভারত-পাকিস্তানের সীমান্ত লাইন অব কন্ট্রােলের (এলওসি) পাশে ভারতীয় সেনারা অভিযান চালায়। বুধবার দিবাগত রাতে ওই অভিযানের সময় গােলাগুলিতে পাকিস্তানের দুই সেনা সদস্য নিহত হওয়ার ঘটনা ঘটে। পাকিস্তান সেনাবাহিনীর আন্তঃবাহিনী জনসংযোগের (আইএসপির) বরাতে পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডনও এক প্রতিবেদনে এ খবর জানায়।

কাশ্মিরের উরির সেনাঘাঁটিতে হামলার ঘটনায় দু’দেশের উত্তেজনার মধ্যেই গোলাগুলি ও হতাহতের এই খবর এলো।

ডন জানায়, বৃহস্পতিবার আইএসপিরের দেয়া বিবৃতি বলা হয়- রাত আড়াইটায় গোলাগুলি শুরু হয়ে চলে সকাল ৮টা পর্যন্ত।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এলওসি’র বাহিমার, হটসপিং এবং লিপা সেক্টরে ভারতীয় বাহিনীর উস্কানিমূলক গুলিবর্ষণের পর পাকিস্তানি সেনারা তার উপযুক্ত জবাব দিয়েছে।’

সম্প্রতি কাশ্মিরের উরির সেনাঘাঁটিতে হামলায় ১৮ জন ভারতীয় সেনা নিহত হয়। ওই হামলার জন্য পাকিস্তানকে দায়ী বলে অভিযোগ ভারতের। তবে বরাবরই অভিযোগ নাকচ করেছে পাকিস্তান।উভয় দেশ ২০০৩ সালে সীমান্তে অস্ত্রবিরতি চুক্তি করলেও তা কোনো দেশই মানছে না। একে অপরকে দায়ী করে মাঝে মধ্যেই গুলি চালায় দু’দেশ। — চ্যানেল আই অনলাইন