এখন মুস্তাফিজ নেই বলে মাশরাফি

মাশরাফি বিন মুর্তজার হাতে নতুন বল ছিল সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সবচেয়ে নিয়মিত চিত্রগুলোর একটি। মুস্তাফিজুর রহমানের জন্য চিত্রটা পাল্টায়। তরুণ বাঁহাতি পেসারের হাতে নতুন বল তুলে দিয়ে বদলি বোলার হিসেবে বোলিংয়ে আসেন মাশরাফি।

চোটের জন্য আপাতত মাঠের বাইরে মুস্তাফিজ। তাই আবার নতুন বলে পুরনো ঝলক দেখানোর সুযোগ মিলছে মাশরাফির।

রোববার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দারুণ কিছু কাটার করলেন মাশরাফি, ফুল লেংথ বলে সুইংও পেলেন ভালো। ২৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দলের সেরা বোলারও তিনি। ম্যাচ শেষে বোলিং নিয়ে জানালেন সন্তুষ্টির কথা।

“২০১৫ সালে হয়ত নতুন বলে বোলিং করতে পারিনি। এখন মুস্তাফিজ নেই তাই করতে হচ্ছে। যেটা হয়েছে, শুরুতে কিছু করতে হয়.. এটা একটু চ্যালেঞ্জিং। ভালো লাগছে যে সময়টা ভালো যাচ্ছে। প্রত্যেকটা ম্যাচ ভালো যাবে না। চেষ্টা করছি ভালো করার।”

ইংল্যান্ড ও আফগানিস্তান সিরিজ মিলিয়ে শেষ ৫ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়েছেন মাশরাফি।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে অলরাউন্ড নৈপুণ্যের জন্য ম্যাচ সেরা হয়েছেন মাশরাফি। দলকে লড়াইয়ের পুঁজিটা তারই এনে দেওয়া। ২৯ বলে খেলেন ৪৪ রানের ঝড়ো এক ইনিংস।

শেষ কয়েকটি ম্যাচে বাংলাদেশের শেষের ব্যাটিং দলের বড় দুর্ভাবনার ব্যাপার। সেটাকে উড়িয়ে দিতেই মারকুটে ব্যাটিং ছিল অধিনায়কের।

“শেষ তিন চার ম্যাচ অনেক কিছু চেষ্টা করছিলাম…ডিফেন্স করতে বা উইকেটে থাকতে।  আজ আমার চিন্তাই ছিল গিয়ে চড়াও হওয়া।”

মাশরাফি মনে করেন, পাল্টা আক্রমণের যাওয়ার ভাবনাটা সঠিক ছিল।

“আমার মনে হয়, ব্যাটিংয়ে আমার অ্যাপ্রোচ ঠিক ছিল। আমি তো বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান না। তাই সব থেকে ভালো হয় আক্রমণাত্মক খেলতে পারলেই। আজকে ওই চিন্তাই করেছি।  তখন ১৬৯ রান ছিল, আমি (থেকে খেলার) চেষ্টা করলে দুইশ হতো। চেষ্টা করেছি শট খেলি, দেখি যতটুকু যাওয়া যায়।”

সেই চেষ্টায় ৮ উইকেটে ২৩৮ রানের সংগ্রহ গড়ে বাংলাদেশ। ব্যাটে-বলে মাশরাফির জ্বলে উঠার দিনে স্বাগতিকরা জেতে ৩৪ রানে। — বিডি নিউজ