ঈদের দিনও এত খুশি হইনি : তাসকিন

মার্চ অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের দায়ে অভিযুক্ত হন তাসিন আহমেদ এবং আরাফাত সানি। এরপর থেকেই তাদের দুনিয়া অন্ধকার।

এক বুক আশা নিয়ে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন চেন্নাইয়ে। সেখান থেকে যে রিপোর্ট এলো তাতে করে দু’জনেরই পায়ের তলা থেকে মাটি সরে যাওয়ার কথা। আশা-পাশের দুনিয়া হয়ে গিয়েছিল অপরিচিত। অন্ধকার হয়ে গিয়েছিল চারপাশ।

এরপর অবশ্য হাল না ছেড়ে তাসকিন-সানি নেমে পড়েন অ্যকাশন শোধরানোর কাজে। টানা আট মাস কঠোর পরিশ্রমের পর অবশেষে আইসিসি অনুমোধিত ব্রিসবেন ন্যাশনাল ক্রিকেট সেন্টারে পরীক্ষা দিয়ে নিষেধাজ্ঞা থেকে মুক্তি পেলেন তারা দু’জনই।

‘বোলিং অ্যাকশন বৈধ’- এটা শোনার পর যেন আরাফাত সানির কাঁধের ওপর থেকে বিশাল একটি বোঝা নেমে গেলো। তিনি বলেন, ‘খুব টেনশনে ছিলাম। কী হয় না হয়- এ চিন্তায় ঘুম পর্যন্ত হারাম হয়ে গিয়েছিল। অবশেষে সুসংবাদটা শোনার পর যত খুশি লাগছে ঈদের দিনও এত খুশি হইনি।’

তাসকিন বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, সু সংবাদটিই পেলাম। বোলিং অ্যাকশন অবৈধ ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই যেন কাঁধের ওপর বিরাট এক বোঝা বসে ছিল। কী হবে না হবে তা নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলাম। অ্যাকশন পরীক্ষা দিয়ে আসার পর চিন্তা আরও বেড়ে যায়। আবার অিরতে পারবো কি পারবো না- তা নিয়ে।

টেনশন কাজ করছিল, এবারের পরীক্ষায় হবে কি না- এটা নিয়েও। তবে এখন আমার বিশ্বাস, অ্যাকশন নিয়ে গত কিছুদিন ধরে যে কঠোর কঠোর পরিশ্রম করে গেছি, এখন তার ফল পেলাম।’