ইংল্যান্ডকে হারালেই আইসিসিতে নতুন উচ্চতায় যাবে বাংলাদেশ

বুধবার চট্টগ্রামে হবে অঘোষিত ‘ফাইনাল’। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে সিরিজের শেষ ও ফাইনাল ম্যাচ। এই ম্যাচে ইংল্যান্ডের জন্য সুখবর কমই।

কেননা প্রথম ম্যাচে জয়ের পথে ছিলো বাংলাদেশই। শেষ দিকে অনেকটাই ভাগ্যক্রমে জয় পায় ইংল্যান্ড। তবে প্রথম ম্যাচে দেখা গেছে লড়াই। আর তাতে বাংলাদেশের সাথে পেরে ওঠার কথা নয় ব্রিটিশদের।

শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে হারালেই আইসিসিতে নতুন উচ্চতায় যাবে বাংলাদেশ। রেটিং পয়েন্টে বৃদ্ধিসহ আরও উন্নতি হবে। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ। সিরিজে এখন ১-১ সমতা। তাই এই ম্যাচ যে জিতবে সিরিজ ও ট্রফি হবে তাদের।

ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডকে সিরিজ হারালে নতুন উচ্চতায় উঠে যাবে বাংলাদেশের ক্রিকেট। মাশরাফি

বিন মুর্তজার দলের টানা ষষ্ঠ ওয়ানডে সিরিজ জয় হবে। ৬ বার তার বেশি টানা সিরিজ জয়ের রেকর্ডের কীর্তি ওয়ানডে ইতিহাসেই আছে মোটে ১১টি।

এটা বাংলাদেশের ঘরের মাটিতে টানা সপ্তম ওয়ানডে সিরিজ জয়ের ম্যাচ। তবে ৫ সিরিজ আগে দেশের বাইরে একটি সিরিজে হেরেছিল বাংলাদেশ। তাই আফগানিস্তানকে সম্প্রতি ২-১ এ হারালে টানা পঞ্চম সিরিজ জয়ের রেকর্ড হয়েছে বাংলাদেশের। তাতে টাইগাররা শ্রীলঙ্কাকে ছাড়িয়ে গেছে। সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হলেও লঙ্কানরা কখনোই টানা ৬ ওয়ানডে সিরিজ জিততে পারেনি। বাংলাদেশ গত বছর পাকিস্তান, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত ও জিম্বাবুয়েকে হারিয়েছে। এই বছর সেই ধারবাহিকতায় সিরিজ জিতেছে আফগানিস্তানের বিপক্ষে।

ইতিহাস বলছে, টানা ১০টি, ৯টি ও ৭টি ওয়ানডে সিরিজ জয়ের রেকর্ড একমাত্র চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার। দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে টানা ৬টি সিরিজ জয়ের রেকর্ড ভাগাভাগি করছে দক্ষিণ আফ্রিকা, একবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ড ও দুইবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ভারত। ভারত ও পাকিস্তান দুইবার করে টানা ৬ সিরিজ জিতেছে।

এবার এইসব বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের এলিট কাঁতারে উঠে আসার পালা মাশরাফির দলের। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম দুটি ম্যাচ ছিল রোমাঞ্চকর। ‘ফাইনাল’ হয়ে ওঠা ম্যাচেও তেমন হওয়ার আভাস আছে। এই বাধাটা পেরুতে পারলেই বাংলাদেশের ক্রিকেট ঢুকে পড়বে নতুন রেকর্ড ও ইতিহাসের পাতায়।