আমি এখনো বিশ্বাস করি না সালমান শাহ্ নেই : মৌসুমী

আজ সালমান শাহের  ৪৪তম জন্মবার্ষিকী। ১৯৯৩ সালে সোহানূর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে নায়ক সালমানের।  প্রথম চলচ্চিত্রে সালমান শাহের নায়িকা ছিলেন  মৌসুমী।

১৯৯৬ সালে ৬ সেপ্টেম্বর আকস্মিক মৃত্যু ঘটে সালমানের। বিএফডিসি, বাংলাদেশে  চলচ্চিত্রের সংশ্লিষ্ট সবাইসহ পুরো বাংলাদেশ সালমানের মৃত্যু মানতে পারেনি। নায়িকা মৌসুমীও সালমান শাহের মৃত্যুর পর স্বভাবতই মানতে পারেননি। এখনো তিনি বিশ্বাস করতে চান না সালমান নেই। সালমানের  মুত্যুর পর বাংলাদেশ বেতারে প্রথম সাক্ষাৎকারে মৌসুমী যা বলেছেন সেটা পাঠকদের জন্য এখানে তুলে ধরা হলো।

‘৬ সেপ্টেম্বর বেলা ১১টার পর আমার এই ছোট্ট জীবনে সবচেয়ে বড় আঘাত। জানি না কতক্ষণ আমার নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে ছিল। যখন হঠাৎ শ্বাস ফিরে এলো তখন জানলাম, আমাদের আপনাদের সবার মনের মনিকোঠার নায়ক সালমানশাহ্ অভিমান করেছে। চলচ্চিত্রের কেয়ামত দেখেছিলাম ওই মুহূর্তে। আমি কেঁদেছিলাম নাকি, পাথর হয়ে গিয়েছিলাম আমি নিজেও জানি না।

তবে দুপুর গড়িয়ে যেতে বুঝলাম চলচ্চিত্র জগত কাকে হারাল। আমি এখনো বিশ্বাস করি না সালমান নেই। বিশ্বাস হতে চায় না, আমাদের প্রিয় নায়ক সালমান আর কোনোদিন আমাদের মাঝে আসবে না। চলচ্চিত্রে আমার প্রথম নায়ক,বন্ধু সালমান। চির অমর হয়ে থাকবে তুমি তোমার ভক্তদের হৃদয় থেকে হৃদয়ে।

৬ সেপ্টেম্বর বিকেলে এফডিসিতে ছুটে গিয়েছিলাম, সবার সাথে আমার প্রথম নায়ক সালমান শাহ্কে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে। দেখলাম প্রাণবন্ত বন্ধুটি আমাদের সাদা কাফনে ঢাকা ফুলে চির শায়িত রয়েছে। মুহূর্তের মধ্যে বুকভাঙ্গা কান্নায় সালমানের সাথে অভিনয়ের কত স্মৃতি মনে পড়ে গেল।

ভক্তপ্রাণ কতটুকু ব্যথা পেলে প্রিয় নায়কের জন্য জীবন দিতে পারে? দুটি তরুণী সালমান পাগলিনী জীবন দিয়ে প্রমাণ করে গেছে প্রাণপ্রিয় নায়ক সালমানের প্রতি তাদের ভালোবাসা।

আমি মৌসুমী নায়ক সালমানের প্রথম নায়িকা। নায়িকা মৌসুমীর প্রথম নায়ক সালমান শাহ্। সেদিন বাংলাদেশ চলচ্চিত্রের একটি ইতিহাস রচনা করেছিলাম আমরা দুজন। একটি মানুষ সালমান, একজন চলচ্চিত্র নায়ক সালমান, লাখ লাখ দর্শক ভক্তদের আনন্দ দানকারী প্রশান্তির উৎস সালমান।’ — এনটিভি অনলাইন