আগামীকাল তিন নম্বরে ব্যাটিং করবেন কে?

তামিমের সঙ্গী হিসেবে ওপেনিংয়ে যেমন একেক সিরিজে খেলছেন একেকজন, তেমনি তিন নম্বরেও স্থায়ী কেউকে খুঁজে পাচ্ছে না বাংলাদেশ। তাই বরাবরের মত আসন্ন আফগানিস্তান সিরিজেও আলোচনা তিন নম্বরে খেলবেন কে? সাব্বির, মুশফিক না মাহমুদউল্লাহ নাকি অন্য কেউ?

এ প্রশ্নের উত্থানে কিছুটা অবাক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। আত্মবিশ্বাসের সঙ্গেই বললেন, `নম্বর তিনে এখন পর্যন্ত যারা খেলেছে তারা কেউই খারাপ খেলেনি। দেড় বছরের পারফরম্যান্স যদি দেখেন যারা খেলেছে খুব একটা খারাপ খেলেনি।`

গত বছর ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে লিটন দাসকে স্থায়ীভাবে তিন নম্বরের খেলার চেষ্টা করেছিল বাংলাদেশ। তবে সে দুই সিরিজের ছয়টি ম্যাচে তার সংগ্রহ ছিল মোট ১০০ রান (৮, ৩৬, ৩৪, ০, ১৭ ও ৫)। এর আগে পাকিস্তান সিরিজে খেলেছিলেন মাহমুদউল্লাহ। তিন ম্যাচে করেছিলেন ২৬ রান (৫, ১৭ ও ৪)।

এরপর গত নভেম্বরে সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজ খেলে বাংলাদেশ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেবার তিন ম্যাচে তিন নম্বর পজিশনে খেলেছেন তিন জন। প্রথম ম্যাচে মাহমুদউল্লাহ, দ্বিতীয় ম্যাচে লিটন দাস এবং তৃতীয় ম্যাচে মুশফিকুর রহীম। মুশফিকুরের ২৮ রান ছাড়া বোলার মত আর কেউ কিছু করতে পারেননি।

তাই ঘুরে ফিরে আবার আসছে তিনে ব্যাটিং করবেন কে? গত বছর থেকেই টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে তিন নম্বরে ব্যাটিং করছেন সাব্বির রহমান এবং দারুণ সফলও হয়েছেন তাতে। তাই বিবেচনায় প্রথমেই আসছে তার নাম। যদিও ওয়ানডে ক্রিকেটে এখনও তিন নম্বরে খেলেননি তিনি।

মাশরাফির কথায়, ‘টি-টোয়েন্টিতে তিন নম্বরে সাব্বির খেলেছে। টিমের কোন অবস্থায় কে কেমন করছে এটা আমাদের থেকে কোচ আরও ভালো করে দেখে। দিন শেষে সে একটা কল নেবেই। ওটা ছিল টি-টোয়েন্টি ফরম্যাট, এটা ওয়ানডে ফরম্যাট। অবশ্যই আমার মনে হয় এখানে ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিতে হবে এবং যে ভালো করছে তাকে সুযোগ দেওয়া উচিত।’

মাশরাফি ছেড়ে দিয়েছেন কোচের উপর। খেলোয়াড়দের চুলচেরা বিশ্লেষণ করে তিনিই সিদ্ধান্ত নিবেন। তবে এর আগে যারা খেলেছেন তাদের উপরও আস্থা রয়েছে তার। বিভিন্ন দলের শক্তিমত্তা ও পরিবেশ বিবেচনা করে ব্যাটিং লাইন আপ পরিবর্তন করেন বলে জানান তিনি।

‘আমার মনে হয় তিন নম্বরে যারা খেলছেন ভালোই করছেন। হয়ত বলতে পারেন পরিবর্তন করে খেলানো হয়েছে। এটা টিম এবং প্রতিপক্ষের কথা চিন্তা করে করা হয়। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে এখনে যারা ব্যাটিং করছে তারা কি এ জায়গায় স্বাচ্ছন্দে খেলছে কিনা। যারা যদি তা না হয় তাহলে সমস্যার সৃষ্টি হয়। যারা খেলছে তারা স্বাচ্ছন্দেই খেলছে।’

তবে শোনা যাচ্ছে আফগানদের বিপক্ষে দলে থাকলে তিন নম্বরে খেলবেন ইমরুল কায়েস। তবে টিম কম্বিনেশনে তিনি দলে না থাকলে কে খেলবেন তা নিয়ে চলছে জোর গুঞ্জন। — জাগোনিউজ