আউট হয়ে একি কাণ্ড করলেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক!

আজও জয় নিয়েই মাঠ ছাড়বেন এমন মনোভাব নিয়েই খেলছিলেন ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার। মাটি কামড়ে খেলছিলেন তিনি।

ইংল্যান্ডের সংগ্রহ তখন ২৭ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২৩ রান। একপ্রান্ত আগলে রেখে ব্যাট করছিলেন অধিনায়ক জস বাটলার।

ছয়জন ব্যাটসম্যানকে আউট করা সম্ভব হলেও বেশ ঠাণ্ডা মাথায় খেলে যাচ্ছিলেন বাটলার। তিনি বাংলাদেশের গলার কাঁটা হয়ে দাঁড়ান। ব্যাট করছিলেন ৫৬ বলে ৫৭ রান নিয়ে। এ সময় ২৮তম ওভার করতে আসেন তাসকিন আহমেদ।

তার করা প্রথম বলটিই খেলতে ব্যর্থ হন বাটলার। বল গিয়ে সরাসরি তার প্যাডে আঘাত হানে। তাসকিন বেশ দীর্ঘ সময় ধরে আবেদন করলেন। কিন্তু আম্পায়ার সাড়া দিলেন না।

আম্পায়াররা দ্বন্দ্বে পড়ে যান। এ সময় রিভিউ নেয় বাংলাদেশ অধিনায়ক। রিভিউতে দেখা যায় বলটি লাইন বরাবর ছিল। লালবাতি জ্বলে ওঠে। তার মানে বাটলারকে ফিরে যেতে হবে!

সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের খেলোয়াড়রা বুনো উল্লাসে মেতে ওঠেন। বিষয়টি পছন্দ হয়নি ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলারের। তিনি তেড়ে যান বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের দিকে। এসময় মাহমুদউল্লার রিয়াদের সঙ্গে বাটলারের কিছুটা উত্তেজনাও সৃষ্টি হয়।

তাকে তেড়ে যেতে দেখে দ্রুতপায়ে এগিয়ে আসেন বাংলাদেশি আম্পায়ার শারফুদৌলা ইবনে শহীদ সৈকত।

তিনিও শান্ত করতে বেগ পাচ্ছিলেন বাটলারকে। তাই এগিয়ে আসেন আরেক আম্পায়ার আলিম দারও। তারা দুজন মিলে শান্ত করেন বাটলারকে। কিন্তু ড্রেসিং রুমে ফেরার পথে বিড়বিড় করে কী যেন বলছিলেন তিনি।

এখানে শেষ হয়ে গেলেই ঠিক ছিল, কিন্তু বাংলাদেশ জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ার সময় দুদলের খেলোয়াড়দের করমর্দনের সময়ও দেখা গেল বাটলার শান্ত হননি। এসময় তামিমের সঙ্গে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয় বাটলারের। সাকিব এগিয়ে এসে শান্ত করেন উভয়কে।