অস্ট্রেলিয়ার ক্যাম্পিংয়ে নিজেকে ফিরে পেতে চান সৌম্য

বৃহস্পতিবার সিডনির উদ্দেশ্যে যখন দেশ ছাড়ছিলেন সৌম্য হয়তো অস্ট্রেলিয়া আর নিউজিল্যান্ড বিশ্বকাপে নিজের নায়কোচিত ইনিংসগুলো ক্ষণিকের জন্য ভেসে উঠছিল চোখের সামনে আর হয়তোবা পুড়ছিলেন বর্তমানে ফর্মের বাজে অবস্থার কথা ভেবে।

যে সৌম্যকে ছাড়া দলই চিন্তা করা যেতোনা বছর দেড়েক আগে সেই সৌম্যই কিনা নিশ্চিত নয় সিডনির বিগ ব্যাশ দল সিডনি থান্ডার্স আর সিডনি সিক্সার্সের বিপক্ষে খেলা প্রস্তুতি ম্যাচগুলোর দলে।

না থাকাটাই স্বাভাবিক, গত প্রায় বছরখানেকেরও বেশী হাসছেনা সৌম্যর ব্যাট। বিপিএলের তৃতীয় আসর থেকে চতুর্থ আসর, বদলায়নি সৌম্যর ফর্ম। আফগানিস্তান সিরিজে সুযোগ মিললেও দু’ম্যাচের ব্যর্থতা ছিটকে দিয়েছিলো ইংল্যান্ড সিরিজ থেকে।

তবে সিডনির প্রস্তুতি ক্যাম্পিংয়েই নিজের ফর্ম ফিরিয়ে আনার সর্বোচ্চ চেষ্টা করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দলে আবারও নিজের নাম লেখাতে বদ্ধপরিকর সৌম্য।

বৃহস্পতিবার ঢাকা ছেড়ে যাওয়ার আগে এক অনলাইন পত্রিকায় দেয়া সাক্ষাৎকারে সেরকম ইচ্ছাই প্রকাশ করলেন বিপিএলে রংপুর রাইডার্সের আইকন ক্রিকেটার সৌম্য, ‘মাঠে নামার সময় ভাল করার ইচ্ছাটা সবসময়ই থাকে। ভাল কিছু করলেই আত্মবিশ্বাসটা ফিরে আসবে, তাই ভাল করার চেষ্টাটা থাকবেই।

ক্যাম্পিংয়ের মাঝেও ফিরে পেতে পারি আত্মবিশ্বাস। প্রস্তুতি ম্যাচগুলোতে যদি লম্বা সময় ব্যাট করতে পারি তবেই আগের মানসিক অবস্থায় যেতে পারবো। নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগেই হারানো জায়গা ফিরে পাবো বলে আমি মনে করি।’

এত ফর্মহীনতার পরেও অধিনায়ক মাশরাফি আর টিম ম্যানেজমেন্ট কিন্তু আশা হারাচ্ছেন না সৌম্যের উপর থেকে। মাশরাফি তো বারবারই বলেছেন সৌম্যের ফিরে আসার কথা। দেশ ছাড়ার আগেও সৌম্যর পক্ষেই কথা বলে গিয়েছেন দলনায়ক।

আর সৌম্যও সেই আস্থার প্রতিদানটা দিতে চায় ফর্মে ফিরে এসে। সৌম্য বলেন, ‘দেশের হয়ে মাঠে নামলে দলীয় অর্জনের পাশাপাশি ব্যক্তিগত খাতায়ও যোগ হয় অনেক কিছু। বাংলাদেশের হয়ে খেলতে নামলে সব সময়ই ইচ্ছা থাকে ভাল কিছু করার।

নিজের বাজে ফর্ম থেকে ফিরে আসার জন্য অস্ট্রেলিয়ার ক্যাম্পিংয়ে সেরাটা দিতে চাই, ফিরে এসে ভাল কিছু দিতে চাই।’

সতীর্থদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান আরও যোগ করেন, ‘তাঁরা তো সব সময়ই পাশে থাকে। আর নিজেরও চেষ্টা আছে ফিরে আসার। হয়তো একটু বেশী সময় ধরেই বাজে ফর্ম যাচ্ছে, তবে আমাকেই তা ঠিক করতে হবে। ফিট হয়ে এই অবস্থা থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার চেষ্টাটা আছে।’

অসাধারণ শুরুর পরেও এই যে হঠাৎ নিজেকে হারিয়ে ফেলা, সৌম্য নিজেও জানেন না কি কারণ, কি উত্তর! ‘সমস্যা তখনই ধরা পড়বে যখন আপনার সময় বাজে যাবে। নিজে থেকেই সেগুলোর সমাধান করার চেষ্টা করছি। নানা পরামর্শ পাচ্ছি, ভুল ধরিয়ে দিচ্ছেন অনেকেই।

মনোযোগ বাড়িয়ে দিয়ে ফিরে আসার চেষ্টা করছি। সব ভুল তো একসাথে ঠিক করা যাবেনা। সমস্যার একদম পুরোপুরি সমাধান নিয়ে তবেই ফিরে আসবো।’

১৩ সদস্যের বাংলাদেশ দলের সাথে সবার আগে অস্ট্রেলিয়া পৌঁছেছেন সৌম্য সরকাররা। মুশফিকের নেতৃত্বে বিপিএল শেষ করেই রওনা করেছিলেন সিডনির উদ্দেশ্যে। তবে মূল লক্ষ্যটা নিউজিল্যান্ডের সাথে তিন ওয়ানডে, তিন টি২০ আর দুই টেস্টের সিরিজ খেলা।–cricfrenzy