অবশেষে জানা গেলো, ম্যাচ চলাকালে রিয়াদের সাথে কি হয়েছিলো বাটলারের?

ইংল্যান্ড ইনিংসের সেটি ২৮তম ওভার। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাটি ঘটে সে সময়। তাসকিন আহমেদের বলে এলবিডব্লিউ আবেদনে আম্পায়ার সাড়া না দিলে রিভিউ নেন মাশরাফি।

ফল আসে বাংলাদেশের পক্ষে। আম্পায়ার সিদ্ধান্ত বদল করতেই বাধনহারা উদযাপনে ফেটে পড়ে মাশরাফি-তাসকিনরা। সেই উদযাপন পছন্দ হয়নি বাটলারের। টিভি পর্দায় তাকে দেখা গেছে অসন্তুষ্ট। বাক্য বিনিময়ও হয় মাহমুদউল্লাহর সঙ্গে।

উদযাপনে বাংলাদেশ সীমা ছাড়িয়েছিল কিনা, এই প্রশ্নে বাটলারের উত্তর দুই জায়গায় ছিল দুইরকম। ইংলিশ সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথোপকথনে বাটলার বলেন, “হ্যাঁ, অবশ্যই (সীমা ছাড়িয়েছিল) …উইকেট পেলে অবশ্যই খুশি হবে। কিন্তু ছুটে কারও মুখের সামনে এসে উদযাপনের কোনো দরকার নেই।”

আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে অবশ্য সীমা ছাড়ানোর প্রশ্নে বাটলারের জবাব হলো আরও কূটনৈতিক। ““হয়ত…আমি নিশ্চিত যে আপনারাই সেটা বিচার করতে পারবেন।”

বাটলার অবশ্য বলেছেন, বাংলাদেশের কেউ তাকে বাজে কোনো কিছু বলেনি। স্রেফ উদযাপনটাই তাকে ক্ষুব্ধ করে দিয়েছিল। ওই ঘটনায় মাঠের আবেগ-উত্তেজনার প্রভাব দেখছেন বাটলার। স্বীকার করে নিলেন নিজের দায়টুকুও।

“আমার দিকে ছুটে এসে ওরা যেভাবে উদযাপন করছিল এবং আমাকে ‘সেন্ড অফ’ দিয়েছিল, সে কারণে অমনটা হতে পারে। এ রকম সময়ে আবেগ থাকে চূড়ায়, ওরা অবশ্যই উইকেট পেয়ে উচ্ছ্বসিত ছিল। হয়ত আমার উচিত ছিল স্রেফ হেঁটে চলে আসা।”

“আউট হয়ে আমি হতাশ ছিলাম। ওদের উদযাপন দেখে আরও খারাপ লেগেছে। তবে হয়ত ব্যাপারটি আমি ভিন্নভাবে নিতে পারতাম এবং স্রেফ হেঁটে চলে আসতে পারতাম!”